ওমিক্রন নয়, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা নিয়ে উদ্বিগ্ন আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রক সংস্থা

|

ছবি: সংগৃহীত

ওমিক্রন নয়, একের পর এক দেশের উপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা নিয়েই বেশি উদ্বিগ্ন আন্তর্জাতিক নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলো। আফ্রিকার দেশসমূহের উপর নিষেধাজ্ঞাকে ‘ভ্রমণ বর্ণবাদ’ বলছে জাতিসংঘ। সংক্রমণ ঠেকাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ হিসেবে কেবল ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় গুরুত্বারোপকে অযৌক্তিক বলে অভিহিত করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংস্থাটি দাবি করেছে, ওমিক্রনের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন কার্যকর নয়, এখনও এমন প্রমাণ মেলেনি।

দক্ষিণ আফ্রিকায় গেল সেপ্টেম্বর থেকেই কমতে শুরু করে করোনার প্রকোপ। ১০ দিন আগেও দেশটিতে দৈনিক শনাক্ত ছিল ৫শ’র ঘরে। এক সপ্তাহের ব্যবধানে সেই সংখ্যা এখন বাড়ছে জ্যামিতিক হারে। ২৯ নভেম্বর শনাক্ত ২ হাজারের ঘরে থাকলেও ডিসেম্বর তা ছাড়িয়েছে সাড়ে ৮ হাজার।

আরও পড়ুন: ওমিক্রন আতঙ্কে ভারত; ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় আবারও বাংলাদেশ

ওমিক্রন আতঙ্কে আফ্রিকাসহ বিভিন্ন দেশের উপর দেয়া হচ্ছে একের পর এক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা। এমন সিদ্ধান্তের নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থাটির দাবি, বৈষম্যমূলক এই আচরণের কারণে অর্থনৈতিকভাবে চরম ক্ষতিগ্রস্ত হবে গোটা বিশ্ব।

জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনি গুতেরেস বলেছেন, বিশ্বের সব অঞ্চলেই ভাইরাস রয়েছে। কিন্তু বিশেষ করে একটি অঞ্চলের উপর যেভাবে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হচ্ছে তা অগ্রহণযোগ্য। কারণ, বিশ্ব অর্থনীতির বড় একটি অংশ আসে আফ্রিকা অঞ্চল থেকে। দেখুন, এরই মধ্যে ইউরোপ-আমেরিকাতেও শনাক্ত হয়েছে ওমিক্রন। তাই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা নয়, বরং নিরাপদে কীভাবে চলাচল স্বাভাবিক রাখা যায় সেই বিষয়েই গুরুত্ব দিতে হবে।

একই সুর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তাদেরও। তারা বলছেন, এখন পর্যন্ত সবগুলো ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে কাজ করছে অনুমোদন পাওয়া ভ্যাকসিনগুলো। এ ছাড়া, ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আরও কিছু তথ্য মিলবে ওমিক্রন সম্পর্কে। তাই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা না দিয়ে দ্রুত ভ্যাকসিনের সুষম বণ্টন নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি।

আরও পড়ুন: বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ছে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার করোনা বিষয়ক কমিটির প্রধান মারিয়া ভন কারখোভ বলেন, ওমিক্রনের ভয়াবহতা সম্পর্কে দ্রুতই বিস্তারিত জানা যাবে। তবে এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিন কাজ করবে না, এখনও এমন তথ্য মেলেনি। তাই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দেয়ার কোনো যৌক্তিকতা দেখি না। বরং এতে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

এদিকে কোভিডের নতুন ধরন নিয়ন্ত্রণে সব মার্কিনিকে বুস্টার ডোজ দেয়ার উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ওমিক্রন নিয়ন্ত্রণে আগামী কয়েক সপ্তাহ হবে বড় চ্যালেঞ্জ, এমন মন্তব্য করেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: আন্তর্জাতিক ফ্লাইটে এবার জাপানের বিধিনিষেধ

এদিকে, ভাইরাসটির ভয়াবহতা ঠেকাতে ১৭ ডিসেম্বর থেকে ২৩ দিনের রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেছে লেবাবন সরকার। যা প্রযোজ্য হবে ভ্যাকসিন না নেয়া মানুষদের জন্য। এছাড়া পেরুর সাথে সীমান্ত বন্ধ করে দিয়েছে ইকুয়েডর।

আরও পড়ুন: আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালুর সিদ্ধান্ত স্থগিত করেছে ভারত


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply