বিরিয়ানির হাঁড়ি খুঁজতে গিয়ে নিখোঁজ যুবক, অতপর…

|

ছবি: সংগৃহীত

চুরি যায় মানুষের অনেক কিছুই। তার কিছু খুঁজে পাওয়া যায় আবার পাওয়া যায় না। বেশিরভাগ টাকা, মোবাইল, স্বর্ণ এসবই চুরি হতে দেখা যায়। কিন্তু এবার চুরি হয়েছে বিরিয়ানির হাড়ি! শুনতে অবাক লাগলেও এমন ঘটনা ঘটেছে ভারতের গড়ফায়।

ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের প্রতিবেদনে বলা হয়, বাইরে থেকে বড়ভাই এসেছে অনেকদিন পর। ভাইয়ের খুব শখ, বিরিয়ানি রেঁধে খাওয়াবে। সেইমতো বন্ধুদের নিয়ে আয়োজনও করেছিলেন। কিন্তু রান্নার সময় দেখা যায়, বিরিয়ানির হাঁড়িটাই উধাও! বন্ধুদের নিয়ে গাড়ি চড়ে হাঁড়ি খুঁজতে বের হলেন যুবক। দীর্ঘক্ষণ পাত্তা না পেয়ে পরিবারের আশঙ্কা হল, বোধহয় ছেলেকে কেউ অপহরণ করেছে। সাথে সাথে পুলিশের সাহায্য চাইলেন যুবকের বড়ভাই। পুলিশ ব্যতিব্যস্ত হয়ে তদন্তে নামল। কিন্তু তার কিনারা করার পর নিজেরাই হেসে খুন তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুন: গাড়ির জানালা খোলায় গুনতে হলো ১৮ হাজার টাকা জরিমানা!

এ যে যুবক অপহরণ নয়, বিরিয়ানির হাঁড়ি ‘অপহরণ’! এমনই মজার মামলার সাক্ষী রইল গড়ফা থানার পুলিশ। গড়ফার বাসিন্দা বছর তিরিশের রোশন সিং বন্ধুদের নিয়ে পরিকল্পনা করেছিল বিরিয়ানি রান্নার। সমস্ত জোগাড়ও হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু কাজে নামার সময় দেখা গেল, উধাও বিরিয়ানির হাঁড়িই। তাহলে রান্না হবে কীসে? ব্যস, শশব্যস্ত হয়ে হারানো হাঁড়ি খুঁজতে বন্ধুদের সাথে নিয়ে বেরিয়ে পড়লেন রোশন সিং।

দীর্ঘক্ষণ ভাইয়ের কোনো খোঁজ না পেয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েন রোশনের বড়ভাই এবং পরিবারের বাকিরা। তারা ভাবতে শুরু করেন, কেউ তাদের ছেলেকে অপহরণ করে নিয়ে গেল কিনা। সেই আশঙ্কায় সাথে সাথে পুলিশের দ্বারস্থ হয় রোশনের পরিবার। লালবাজারের আপৎকালীন নাম্বারে যোগাযোগ করে ছেলেকে খুঁজে দিতে পুলিশের সাহায্য চান। অপহরণের অভিযোগ পেয়ে তদন্তে নামে গড়ফা থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন: অনলাইনে পিৎজা অর্ডার করে ১৩ লাখ টাকা খোয়ালেন এক নারী

প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে রোশনের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে পুলিশ। ফোন রিসিভ করেন রোশন। জানতে পারে, কেউ তাকে অপহরণ করেনি। তিনি বন্ধুদের নিয়ে বিরিয়ানির হাঁড়ি খুঁজতে বেরিয়েছেন। একথা শুনে হাসি আর থামছিলই না পুলিশ অফিসারদের। তবে সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখে, রোশনের বক্তব্যের সত্যতা যাচাই করার পর পুলিশ তাঁকে জানায় যে বাড়ির লোকজন অত্যন্ত উদ্বিগ্ন তার জন্য। তিনি যেন দ্রুত বাড়ি ফিরে যান। এসব শুনে রোশন বাড়ি ফিরে আসেন, পরিবারকে গোটা ঘটনা জানান।

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply