পেটে ৩০টি সেলাই দিয়ে জঙ্গলে ফেরত পাঠানো হলো বিষধর গোখরাকে

|

ছবি: সংগৃহীত

শাবলের আঘাতে পেট থেকে নাড়িভুঁড়ি বেরিয়ে গিয়েছিল একটি বিষধর গোখরা সাপের। তবে ভাগ্যের জোরে বেঁচে ফিরেছে সে। সাপটিকে ফেলে পালায়নি মানুষের দল। তাকে বাঁচিয়ে তোলার চেষ্টা চলেছে দিনভর। দ্য ওয়ালের প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার শিরিষতলা এলাকায় রাস্তার পাশে বিদ্যুতের খুঁটি সরানোর কাজ চলছিল। তখনই খুঁটির গোড়া খুড়তে গিয়ে একটি বড় গোখরা সাপের পেটে শাবলের কোপ পড়ে।

বিদ্যুৎ দফতরের কর্মীরা দেখেন সাপটি যন্ত্রণায় ছটফট করছে, তার পেট থেকে নাড়িভুঁড়ি বেরিয়ে এসেছে। তা দেখে খারাপ লাগে অনেকের। সাথে সাথে এলাকার মানুষের সহায়তায় খবর যায় পরিবেশকর্মী বিশ্বজিৎ দত্ত চৌধুরীর কাছে।

আরও পড়ুন: কোথায় আমার ৭ সন্তান? ধ্বংসস্তূপে পাগলের মত খুঁজে চলেছে মা

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন বিশ্বজিৎ। তিনি এসে সাপটিকে উদ্ধার করে জলপাইগুড়ি জেলা পশু হাসপাতালে নিয়ে যান। সাপটির করুণ পরিণতি দেখে এগিয়ে আসেন পশু চিকিৎসকরাও। শুরু হয় গোখরা সাপটির শুশ্রূষা। তার ক্ষতস্থান স্পিরিট দিয়ে মুছে সেলাই করে দিতে থাকেন ডাক্তাররা। প্রায় ৩০টি সেলাই পড়ে সাপের পেটে। এরপর কিছুক্ষণ তাকে পর্যবেক্ষণে রেখে প্রয়োজনীয় ওষুধ ও ইনজেকশন প্রেসক্রাইব করে সাপটিকে বিশ্বজিতের হাতে তুলে দেন ডাক্তাররা। এরপর শুক্রবার থেকেই সাপটি বিশ্বজিতের কাছে ছিল।

ডাক্তারের নির্দেশ মেনে সময়মতো ওষুধ লাগানো, ইনজেকশন দেয়া সবই তিনি যত্নসহকারে করেছেন। তারপর ২৪ ঘণ্টা পর থেকে দেখেন সাপটির ক্ষতস্থান শুকিয়ে আসছে। উচ্ছ্বসিত হয়ে ফের ডাক্তারের পরামর্শ নেন বিশ্বজিৎ। তারপর বন দফতরকে জানিয়ে সাপটিকে নিরাপদ জঙ্গলে ছেড়ে দেন।

আরও পড়ুন: দলছুট বাছুরকে না খেয়ে মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিলো সিংহী!

/এনএএস





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply