শাবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে প্রভোস্টের পদত্যাগ

|

শাবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের লাঠিপেটার পর অনির্দিষ্টকালের জন্য সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আগামীকাল (১৭ জানুয়ারি) বেলা ১২টার মধ্যে হল ছাড়তে হবে শিক্ষার্থীদের। আন্দোলনের মুখে পদত্যাগ করেছেন বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের প্রভোস্ট জাফরিন আহমেদ লিজা। অসুস্থতাজনিত কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করেন জাফরিন আহমেদ লিজা। রাতে ভার্চুয়াল সিন্ডিকেট মিটিংয়ে এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এর আগে ৩ দফা দাবি আদায়ে আজ (১৬ জানুয়ারি) বিকেলে উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে শিক্ষার্থীরা। পরে শিক্ষার্থীদের লাঠিপেটা করে উপাচার্যকে বের করে বাসভবনে নিয়ে যায় পুলিশ। শিক্ষার্থীদের আন্দোলন ঘিরে দিনভরই থমথমে ছিল শাবিপ্রবি ক্যাম্পাস। উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ তার কার্যালয় থেকে বের হলে আন্দোলনকারীদের ক্ষোভের মুখে পড়েন। এ সময় দৌড়ে আইসিটি ভবনে আশ্রয় নেন তিনি। এরপরই ছড়িয়ে পড়ে উত্তেজনা। উপাচার্যকে অবরুদ্ধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা। ঘণ্টা দেড়েক পর পুলিশ সাথে নিয়ে শিক্ষক-কর্মকর্তারা তাকে বের করে আনতে যান। শিক্ষার্থীদের অভিযোগে বলেন, সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে তাদের ওপর হামলা চালায় পুলিশ। লাঠিপেটা করে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়। এ সময় এক পাশে অবস্থান নেয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এক পর্যায়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ছোঁড়ে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে একের পর এক সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে পুলিশ। শিক্ষার্থীরা পিছু হটলে ভিসিকে বের করে বাসভবনে নিয়ে যায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাদের দাবি, আন্দোলনকারীরাই পুলিশের ওপর চড়াও হয়।

আহতদের নগরীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা গুরুতর বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম সিরাজুন্নেসা চৌধুরী হলের প্রভোস্ট বডির পদ্যতাগসহ ৩ দফা দাবিতে কয়েকদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে হলের শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন: শাবিপ্রবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ ঘোষণা, হল ত্যাগের নির্দেশ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply