ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করলো যুক্তরাষ্ট্র; ‘এজন্য ভুগতে হবে’- রাশিয়ার প্রতিক্রিয়া

|

মধ্যম পাল্লার ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। পরমাণু অস্ত্র ধারণে সক্ষম এমন সমরাস্ত্র উৎপাদন নিষিদ্ধ বিষয়ক রাশিয়ার সাথে করা একটি চুক্তি থেকে গত সপ্তাহে সরে আসার পর এই পরীক্ষা করা হলো।

পেন্টাগন জানিয়েছে, ক্যালিফর্নিয়া উপকূলে সফলভাবে তারা এই পরীক্ষা চালাতে সক্ষম হয়েছে। এরপরই মস্কো প্রতিক্রিয়ায় জানিয়ে বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন আচরণ সামরিক উত্তেজনা বাড়াবে।

গত ২ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্র ইন্টারমিডিয়েট রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস ট্রিটি (আইএনএফ) থেকে বেরিয়ে আসে। ওয়াশিংটনের অভিযোগ, মস্কো আগেই এটি লঙ্ঘন করেছে। স্নায়ুযুদ্ধে সময় করা চুক্তিটির অধীনে ৫০০ থেকে সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার পাল্লার ক্ষেপনাস্ত্র পরীক্ষা নিষিদ্ধ ছিল।

পেন্টাগন অবশ্য বলেছে, পরীক্ষা চালানো ক্ষেপণাস্ত্রটি পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম নয়।

মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চলাচলযোগ্য একটি লাঞ্চার থেকে ছোঁড়ার পর ৫০০ কিলোমিটার দূরের টার্গেটে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে ক্ষেপণাস্ত্রটি। এই পরীক্ষা থেকে প্রাপ্ত তথ্য ও ‘শিক্ষা’কে পরবর্তীতে নতুন পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র তৈরিতে কাজে লাগানো যাবে বলেও জানানো হয়।

এর জবাবে রাশিয়া বলেছে, এই পরীক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে ‘ভুগতে হবে’। রুশ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই রিয়াবকভ বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র সামরিক উত্তেজনা বৃদ্ধির পথেই হাঁটলো। আমরা এমন উস্কানিতে সাড়া দেব না।

সূত্র: বিবিসি









Leave a reply