নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পরও যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে আওয়ামী লীগ

|

স্বাধীন বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে রূপ দিতেই ৭৫’র ১৫ আগস্ট সপরিবারে হত্যা করা হয় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে। নেতৃত্ব ধ্বংস করার পাশাপাশি জাতির পিতার আদর্শকে মুছে দিতেই এই নৃশংস হত্যাকাণ্ড চালায় দেশবিরোধীরা। একই সাথে রাজনৈতিক দল হিসেবে আওয়ামী লীগের ওপরও চলে নির্যাতন। বিশ্লেষকদের মতে, এতো অত্যাচার নির্যাতনের পরও ক্রমেই এগিয়েছে আওয়ামী লীগ। যার মূল কারণ জনগণের কাছে বঙ্গবন্ধুর আর্দশ আর গ্রহণযোগ্যতা।

স্বাধীন একটি মানচিত্রের জন্য বাঙালির হাজার বছরের স্বপ্নের রূপকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। পাকিস্তানের জল্লাদখানা মৃত্যুঞ্জয়ী যে নেতাকে আটকে রাখতে পারেনি নতুন বাংলাদেশ নির্মাণের সংগ্রামে, তার পথে বাধা হলো স্বদেশি স্বাধীনতাবিরোধীরাই। অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্য নিয়ে বঙ্গবন্ধু যখন সামনে এগোচ্ছেন, তখন, পঁচাত্তরের আগস্টের কাল রাতে নির্মমভাবে তাকে হত্যা করা হয় সপরিবারে।

অভিভাবকশূন্য আওয়ামী লীগ ঠিকই ঘুরে দাঁড়িয়েছে সময়ের পরিক্রমায়। নির্বাসন থেকে ফিরে দল গঠনে কাজ শুরু করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা।

এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, আন্দোলন সংগ্রাম করেই আমরা ঘুরে দাঁড়িয়েছি। সব সময় আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছিল। এখনও আছে। ষড়যন্ত্র আমরা মোকাবেলা করেছি, দক্ষতার সাথে, গণআন্দোলনের মাধ্যমে। অত্যাচার সহ্য করেছি। আজকে আমরা এগিয়ে গেছি।

ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ডক্টর সৈয়দ আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আওয়ামী লীগ বাংলাদেশের একমাত্র তৃণমূল সংলগ্ন প্রাচীন একটি দল এবং আদর্শভিত্তিক দল। এ কারণেই বারবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে দলটি।’

বিশ্লেষকদের মতে, জাতির পিতাকে হত্যা পরও দেশের তৃণমূলের মানুষই ছিল আওয়ামী লীগের সব থেকে বড় শক্তি। অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের দল হিসেবেই মানুষ সমর্থন করে প্রাচীন এ দলটিকে। আন্দোলন সংগ্রামেও নেতৃত্ব দিতে হয়েছে দলটিকে।

৩৩ বার জেলে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আমরা জিয়া রহমানের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছি, এরশাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছি। খালেদা জিয়া সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করেছি। আমরা থেমে থাকিনি।’

নানা ঘাত-প্রতিঘাতের পরও আওয়ামী লীগ কীভাবে টিকে আছে তার কারণ ব্যাখ্যা করলেন অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, ‘এর কারণটা হচ্ছে আওয়ামী লীগের একটা আদর্শিক ভিত্তি আছে। জনসংলগ্নতা আছে। আওয়ামী যখনই ক্ষমতায় এসেছে প্রান্তিক মানুষ কিছু না কিছু পেয়েছে। সেজন্যই আওয়ামী লীগ বারবার ফিনিক্স পাখির মতো জেগে উঠেছে।’

দল এবং সরকার পরিচালনায় আদর্শগত বিভিন্ন সমালোচনা থাকলেও কেবল বঙ্গবন্ধুর সার্বজনীন গ্রহণযোগ্যতার কারণেই, যুগ যুগ টিকে থাকবে আওয়ামী লীগ এমনই মত বিশ্লেষকদের।









Leave a reply