গাইবান্ধায় ডেঙ্গু আক্রান্ত ৫১ রোগী শনাক্ত, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ২২ জন

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

বাড়ছে গাইবান্ধায় ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে আরও সাতজন রোগী গাইবান্ধার আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে গত ১৭ দিনে গাইবান্ধা জেলায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৫১ জনে। আক্রান্তদের মধ্যে বর্তমানে এক নারীসহ ২২ জন রোগী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ মাহাফুজুর রহমান।

তিনি জানান, ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিনেই রোগী আসছেন গাইবান্ধার আধুনিক সদর হাসপাতালে। গত ২৪ ঘণটায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সাতজন রোগী। বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন এক নারীসহ ২২ জন রোগী। গত ২২ ও ২৩ জুলাই প্রথম গাইবান্ধায় তিনজন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী হাসপাতালে চিকিৎসা নেয়। কিন্তু এরপর থেকে প্রতিদিনেই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসছেন রোগীরা।

বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত গাইবান্ধায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত মোট ৫১ জন রোগী শনাক্ত করা হয়। আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ৮ জন রোগীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রের্ফাড করা হয়েছে। চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১১ জন রোগী। আর ছাড়পত্র না নিয়ে (কাউকে না জানিয়ে) হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪ জন রোগী। এছাড়া আক্রান্ত অন্য রোগীরা গোবিন্দগঞ্জ ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এবং বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা নিচ্ছেন। ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের জন্য দ্বিতলায় একটি ‘ডেঙ্গু শনাক্ত কর্ণার’ ও হাসপাতালে আলাদা বেডের ব্যবস্থা করা হয়েছে। হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগী শনাক্তে পরীক্ষাসহ চিকিৎসা সেবায় যথেষ্ট আন্তরিক দায়িত্ব পালন করছেন কর্তব্যরত চিকিসক ও নার্সরা।

এদিকে, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় এ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত ৬ জন রোগী গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। তবে আক্রান্ত ৬ জনের মধ্যে ২ জনকে ঢাকায় ও ৪ জনকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পরীক্ষা করে ডেঙ্গু আক্রান্ত শনাক্ত করা হয়। আক্রান্তদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রের্ফাড করা হয়েছে বলে জানান গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. মজিদুল ইসলাম।

অপরদিকে, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার তিন বছরের শিশু রিয়ানা খাতুন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে মারা যায়। রিয়ানা পলাশবাড়ীর হরিনাবাড়ি গ্রামের আশরাফুল ইসলামের মেয়ে। আশরাফুল ইসলাম পোশাক শ্রমিক হওয়ায় স্ত্রী ও সন্তানকে নিয়ে নারায়ণগঞ্জে বসবাস করতেন। গত ২ আগস্ট শিশু রিয়ানা জ্বরে আক্রন্ত হয়। পরে নারাগঞ্জ মা ও শিশু স্বাস্থ্য কেন্দ্রে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর ডেঙ্গু আক্রান্ত শনাক্ত করে চিকিৎসক। এরপর গত ৩ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রিয়ানাকে ভর্তি করান পরিবারের লোকজন।

এ বিষয়ে গাইবান্ধা সিভিল সার্জন ডা. এ.বি.এম আবু হানিফ জানান, ডেঙ্গুতে আক্রান্ত অধিকাংশই ঢাকায় লেখাপড়া, চাকরি কিংবা বেড়াতে গিয়ে আক্রান্ত হয়ে গাইবান্ধায় এসে চিকিৎসা নেয়। আক্রান্তরা মুলত ঢাকাতেই ডেঙ্গুর জীবানু বহণ করে গাইবান্ধায় আসার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তবে স্থানীয় পর্যায়ে কেউ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হওয়ার কোনো খবর পাওয়া যায়নি।









Leave a reply