স্কুলছাত্রীর চিঠি পেয়ে সেই বখাটেকে কারাদণ্ড দিলেন ইউএনও

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:
নিজের বাল্য বিয়ে ও বখাটের উৎপাত থেকে রক্ষা পেতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে স্কুলছাত্রী মোমিনা আক্তারের চিঠি দেয়ার একদিন পর অভিযুক্ত সেই বখাটে উছমান ভূঁইয়াকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার রাতে আশুগঞ্জ উপজেলা নিবার্হী অফিসার (ইউএনও) মো. নাজিমুল হায়দার ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এই কারাদণ্ড দেন।

স্কুলছাত্রী মোমিনা আক্তার কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ইউএনও স্যার আমাকে এবার বাচিঁয়ে দিল। তার প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।

এসময় মোমেনা জানান, তিনি পড়ালেখা করতে চায়। সবার কাছে দোয়া কামনা করেন।

আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নাজিমুল হায়দার জানান, স্কুলছাত্রী মোমিনা আক্তারের চিঠির প্রেক্ষিতে উভয় পক্ষকে ডাকা হয়। সেখানে উভয়ের সঙ্গে কথা বলে দন্ডবিধির ৫০৯ ধারা মোতাবেক উছমান ভূঁইয়াকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

এরআগে বখাটের অত্যাচার ও বাল্য বিয়ে থেকে নিজেকে রক্ষা পেতে আশুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাজিমুল হায়দারকে চিঠি দেয় বেড়তলা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী মোমিনা আক্তার। আশুগঞ্জ নির্বাহী অফিসারের দপ্তরে চিঠি পৌঁছিয় দেয় স্কুলছাত্রী মোমিনা আক্তার নিজেই। সে জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার বইগর গ্রামের মৃত নুরুল আমীনের মেয়ে।









Leave a reply