হজ পরিচালনায় আন্তর্জাতিক কমিটির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান সৌদির

|

সৌদি সরকারের একক পরিচালনার পরিবর্তে আন্তর্জাতিক একটি কমিটির মাধ্যমে হজ পরিচালনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে সৌদি আরব।

সৌদি বাদশাহর উপদেষ্টা ও মক্কা নগরীর প্রধান খালেদ আল ফায়সাল জানান, আন্তর্জাতিক কমিটির সাহায্যে হজ পরিচালনার প্রস্তাব অগ্রহণযোগ্য, এমন প্রস্তাব বাস্তবসম্মত নয়। সৌদি সরকার হজকে রাজনৈতিক একটি সম্মিলনে রুপান্তরিত করার অনুমতি দেবে না।

সৌদি আরব সুষ্ঠুভাবে হজ পরিচালনায় ব্যর্থতার পরিচয় দিচ্ছে অভিযোগ করে ইরানসহ কয়েকটি দেশ হজ পরিচালনার জন্য আন্তর্জাতিক একটি কমিটি গঠনের দাবি জানিয়েছিল।

সৌদি আরবের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ দেশগুলোর হজযাত্রীদের নিয়ে বিভিন্ন সময় সমস্যা সৃষ্টি হওয়ায় এ দাবির পক্ষে জনমত বৃদ্ধি পেয়েছে।

কাতারের হজযাত্রীদের প্রবেশ ও হজ পালনে সমস্যা সৃষ্টির পাশাপাশি ইরান, ইয়েমেন ও লিবিয়ার নাগরিকদের নিয়ে বিভিন্ন সময় জটিলতা সৃষ্টি হয়। তাছাড়া বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের হজ পালনের ওপর নিষেধাজ্ঞাও জারি করে সৌদি সরকার।

এ কারণে গত কয়েক বছর ধরে ইরান, সিরিয়া ও লেবাননসহ মধ্যপ্রাচ্যের অনেক আলেম আন্তর্জাতিক কমিটির মাধ্যমে হজ পালনের দাবি জানাচ্ছেন। তবে সৌদি সরকার শুরু থেকেই বিষয়টিকে অগ্রহণযোগ্য প্রস্তাব বলে প্রত্যাখ্যান করে আসছে।

হজ ব্যবস্থাপনার বিষয়ে সৌদি সরকারের বিরুদ্ধে এবার বিরোধপূর্ণ দেশের হাজীরা বিক্ষোভ করতে পারে বলে আশঙ্কা করছে সৌদি সরকার।

এ পরিপ্রেক্ষিতে পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশ্যে সৌদি আরবে অবস্থানরত মুসল্লিদের কোনো ধরণের রাজনৈতিক বা মতাদর্শকেন্দ্রীক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ।

এছাড়া যে কোনো ধরণের ধর্মীয় ও রাজনৈতিক স্লোগান দেয়া থেকে বিরত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন সৌদি বাদশাহ সালমান।

এদিকে হজ ও ওমরাহর উদ্দেশে আগত কাতারি নাগরিকদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে সৌদি আরব।

এখন থেকে কাতারের নাগরিকদের ‘ইলেকট্রনিক গেটস’ নামের এক ধরনের পদ্ধতির মাধ্যমে হজের নিবন্ধন করতে হবে। শুধুমাত্র নিবন্ধিত হজযাত্রীরাই জেদ্দার শাহ আব্দুল আজিজ বিমানবন্দর ও মদীনার মোহাম্মদ বিন আব্দুল আজিজ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন।









Leave a reply