‘ঢাকা-বেনাপোল’ বিরতিহীন ট্রেন চালু

|

বিরতিহীন বেনাপোল-ঢাকা-বেনাপোল রুটে নতুন আন্তঃনগর ট্রেন চালু ও বনলতা ট্রেনের সেবা বর্ধিতকরণের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

দুপুরে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে উদ্বোধন করেন তিনি। ৮৯৬টি আসনের এই ট্রেন প্রতিদিন বেলা সোয়া একটায় বেনাপোল রেলস্টেশন থেকে ছেড়বে। ট্রেনে যাত্রীদের জন্য দুপুরে খাওয়ার ব্যবস্থা থাকছে।

প্রধানমন্ত্রী ঢাকা-রাজশাহী-চাপাইনবাবগঞ্জ রুটে বিরতিহীন আন্তঃনগর ‘বনলতা এক্সপ্রেস’ ট্রেনও উদ্বোধন করবেন।

সংগৃহীত কোচসমূহের অন্যতম নতুন বৈশিষ্ট্য হল- বায়ো-টয়লেট সংযোজন। ট্রেনটিতে প্রতিবন্ধী যাত্রিদের হুইল চেয়ারসহ চলাচলের সুবিধার্থে থাকছে প্রসস্থ দরজা (মেইন ও টয়লেট দরজা) এবং নির্ধারিত আসনের সুবিধা। প্রতিটি কোচ স্টেইনলেস স্টীলের তৈরি এবং অত্যাধুনিক যাত্রী সুবিধা স্বম্বলিত। প্রতিটি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কোচে আধুনিক ও উন্নতমানের রুফ মাউন্টেড এয়ার কন্ডিশনার ইউনিট এবং এয়ার কার্টেইনের ব্যবস্থা রয়েছে।

যাত্রী সাধারণের জন্য আধুনিক ও মানসম্মত চেয়ার, বার্থ, স্টেয়ার, পার্সেল রেক, টিভি মনিটর হ্যাঙ্গার, ওয়াই-ফাই রাউটার হ্যাঙ্গার, মোবাইল চার্জার এর ব্যবস্থা রয়েছে। ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেনটি ১২ টি কোচ দ্বারা চলবে। ট্রেনটিতে এসি সিট, এসি চেয়ার ও শোভন চেয়ার শ্রেণীর সর্বমোট ৮৯৬টি (৭৯৫ নং ট্রেনের ক্ষেত্রে) এবং এসি বার্থ, এসি চেয়ার ও শোভন চেয়ার শ্রেণীর সর্বমোট ৮৭১টি (৭৯৬ নং ট্রেনের ক্ষেত্রে) আসনের ব্যবস্থা থাকবে।

বেনাপোল ট্রেনের সাপ্তাহিক বন্ধের দিন (৭৯৫) বুধবার ও (৭৯৬) বৃহস্পতিবার। ট্রেনটি বেনাপোল থেকে ছাড়বে দুপুর ১ টায়, ঢাকা পৌঁছবে রাত ৯ টায় এবং ঢাকা থেকে ছাড়বে রাত ১২: ৪০ মিনিটে, বেনাপোল পৌঁছাবে সকাল ৮ টা ৪৫ মিনিটে।

‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেনের এটেনডেন্ট ও ক্যাটারিং সেবা বাংলাদেশ রেলওয়ের নিজস্ব কর্মচারী দ্বারা পরিচালিত হবে। এ ট্রেনের ১০% নন-স্টপ চার্জসহ ভাড়া প্রযোজ্য হবে।

বেনাপোল- ঢাকা পর্যন্ত উভয় দিকে যাত্রী ভাড়াঃ শোভন চেয়ার-৫৩৪ টাকা, এসি চেয়ার-১০১৩ টাকা (ভ্যাটসহ), এসি সিট-১২১৩ টাকা (ভ্যাটসহ), এসি বার্থ-১৮৬৯ টাকা (ভ্যাট+বেডিং চার্জসহ)।









Leave a reply