ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলায় শ্রেণী কক্ষের ভেতরে ক্লাস চলাকালীন সময়ে এক স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে শামছুল ইসলাম নামে এক শিক্ষককে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাকে আটক করা হয়। আটক শামছুল ইসলাম উপজেলার দেবগ্রাম সরকারি পাইলট মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগে শিক্ষক।

শ্লীলতাহানির শিকার সপ্তম শ্রেণীর ওই শিক্ষার্থীর এক অভিভাবক জানায়, মঙ্গলবার ক্লাস চলাকালে শিক্ষক শামছুল ইসলাম শ্রেণী কক্ষেই ওই ছাত্রীর শ্লীলতাহানি করে। পরে ওই শিক্ষার্থী বাড়িতে গিয়ে বিষয়টি জানায়। এরপর বিষয়টি বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকদেরকে অবহিত করা হয়। এরই মধ্যে ওই শিক্ষক শিক্ষার্থীর বাড়ি গিয়ে ভুল স্বীকার করে বিষয়ে ক্ষমা চেয়ে আসেন। তবে বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে স্থানীয় লোকজন ক্ষুব্দ হয়ে উঠে। বিদ্যালয় ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শনের পাশাপাশি ওই শিক্ষকের শাস্তি বিচার দাবি করেন। পরে পুলিশ গিয়ে শিক্ষক শামছুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। দেবগ্রামের বাসিন্দা রিপন মিয়া বলেন সুযোগ পেলেই ছাত্রীদের অঙ্গে হাত দিতেন তিনি। এর আগেও এই অভিযোগে কারাভোগ করেছেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ মো. মাহফুজুর রহমান জানান, শিক্ষার্থীর অভিভাবক জানান ক্লাসেই ছাত্রীর শরীরে হাত দেন শিক্ষক সামছুল ইসলাম। বিষয়টি জানার পর শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্টদেরকে নিয়ে বিদ্যালয়ে আলোচনায় বসা হয়। পরে পুলিশ এসে শিক্ষক শামছুল ইসলামকে আটক করে নিয়ে যায়।

আখাউড়া থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রসুল আহমেদ নিজামী জানান, অভিযুক্তকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে এই ঘটনার খবর পেয়ে আখাউড়া উপজেলা নিবার্হী অফিসার তাহমিনা আক্তার রেইনা বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply