সড়কের দু’পাশে বাস পার্কিং: মেরাদিয়ায় লেগেই থাকে যানজট

|

নগরীর মেরাদিয়া এলাকায় ডেমরা-রামপুরা সড়কের দু’পাশেই অবৈধভাবে পার্কিং করে রাখা হচ্ছে বিভিন্ন যাত্রীবাহী বাস। এতে সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট। পথচারীদের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। যানজটে আটকা পড়া যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।

বাসচালকরা বলছেন, গাড়ি রাখার জন্য গ্যারেজ বা নির্দিষ্ট কোনো জায়গা না থাকায় রাস্তার পাশেই পার্কিং করতে হচ্ছে। অথচ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) বেশ কয়েকবার সড়ক থেকে এসব বাস সরানোর উদ্যোগ নিলেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। তবে এলাকাবাসী পার্কিং বন্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

ডিএসসিসির ৩ নম্বর ওয়ার্ডের পাশ দিয়েই গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম ডেমরা-রামপুরা সড়ক। এ সড়ক দিয়ে দিন-রাতে যাত্রীবাহী বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করে।

সরেজমিন দেখা গেছে, মেরাদিয়া হাটসংলগ্ন এলাকায় ডেমরা-রামপুরা সড়কের দু’পাশে বিভিন্ন পরিবহনের বাস অবৈধভাবে পার্কিং করে রাখা হয়েছে। এমন অবস্থা সব সময় চললেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না।

ঐতিহ্যবাহী মেরাদিয়া হাট এলাকা থেকে রামপুরা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত সড়কের পাশে গড়ে উঠেছে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, বিপণিবিতানসহ বিভিন্ন স্থাপনা। তাই এখানে সবসময় যানবাহন চলাচল বেশি থাকে।

এ ছাড়াও মেরাদিয়া-রামপুরা এলাকায় বেশ কয়েক বছর ধরে অসংখ্য বহুতল ভবন গড়ে উঠেছে। যাতায়াতসহ সব নাগরিক সুবিধা বেশি থাকায় ক্রমেই এখানে মানুষের বসবাস বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে যানবাহন চলাচল।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, মেরাদিয়া বাজার ও আশপাশের আবাসিক এলাকায় সড়কের দু’পাশেই যাত্রীবাহী বাস পার্কিং করা হয়। এ নিয়ে শিক্ষার্থী-পথচারী, বাজারের দোকানদার ও ভুক্তভোগীরা প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর ক্ষিপ্ত হয় চালক-হেলপার ও তাদের সহযোগীরা।

সড়কের পাশে ইচ্ছেমতো বাস পার্কিং করায় যানজট যেমন হয়, তেমনি চলাচলে সৃষ্টি হয় নানা প্রতিবন্ধকতা। এলাকার সৌন্দর্যও নষ্ট হয়। অথচ কোনো পরিবহন কোম্পানির অনুমোদনের অন্যতম শর্ত হল নিজস্ব পার্কিং ব্যবস্থা।

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি-বিআরটিএ বলছে, কাগজপত্রে ঢাকাসহ দেশের সব বাস কোম্পানির নিজস্ব পার্কিং জোনের কথা উল্লেখ আছে।

কিন্তু বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠান নিজস্ব পার্কিং প্লেস ব্যবহার না করায় জনদুর্ভোগ হয়। আইনের দৃষ্টিকোণ থেকেও তা বৈধ নয়। এদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়েও সরানো যাচ্ছে না অবৈধভাবে পার্কিং করা এসব বাস।

রায়হানা পারভীন নামে এক পথচারী জানান, অবৈধ বাস পার্কিংয়ের সামনেই আবাসন এলাকায় আমাদের বসবাস। অফিসে যাতায়াত করতে মেরাদিয়া বাজার হয়ে আসতে হয়। সড়কে উঠতেই ডেমরা-রামপুরা সকের দু’পাশে পার্কিং করা বাসগুলোর চালক-হেলপাররা প্রায় উত্ত্যক্ত করে।

ঢাকা-সিলেট রুটের এক গাড়ির চালক মো. হাশেম বলেন, মেরাদিয়া এলাকায় সড়কের দু’পাশ যেন স্থায়ী বাস পার্কিং এলাকা। অথচ শুধু পার্কিংয়ের কারণে মেরাদিয়া এলাকায় প্রতিনিয়ত দীর্ঘ যানজট হয়।

যাত্রী ভোগান্তি তখন চরম আকার ধারণ করে। এছাড়াও রামপুরা বাসস্ট্যান্ড পর্যন্ত ২-৩ মিনিটের রাস্তা পাড় হতে তখন আধা ঘণ্টা সময় লেগে যায়। পুলিশের সামনে এমন অন্যায় কিছুতেই মানা যায় না।

ডিএসসিসি ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদ হোসেন মহসীন বলেন, দীর্ঘ দিন ধরেই সড়কের দু’পাশে অবৈধ পার্কিং করা হচ্ছে। প্রভাবশালী কারও ছত্রছায়ায় তারা সড়কে পার্কিং করছে। জনদুর্ভোগ কমাতে পুলিশের সঙ্গে সমন্বয় করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

রামপুরা ট্রাফিক জোনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ কমিশনার মো. হুমায়ূন কবির বলেন, মেরাদিয়া বাজার এলাকায় সড়কের দু’পাশে অবৈধ পার্কিং করা বাসগুলোর বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত মামলা ও রেকারিং করা হচ্ছে। এ বিষয়ে মালিক পক্ষের সঙ্গেও কথা হয়েছে।

তবে স্থান সংকুলান না হওয়ায় স্থায়ী পার্কিং প্লেস বের করা যাচ্ছে না বলে সাময়িক সমস্যা হচ্ছে। শিগগির এ সমস্যার সমাধান হবে। তাছাড়া চালক-হেলপারদের বেপরোয়ার বিষয়ে অভিযোগের ভিত্তিতে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply