এবার চালকের গলাকেটে ইজিবাইক ছিনতাই

|

মাগুরা প্রতিনিধি
মাগুরা সদর উপজেলার চাউলিয়া ইউনিয়নের কুকিলা গ্রামের পাট ক্ষেত থেকে আল আমিন হোসেন (১৪) নামে এক কিশোরের গলাকটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার সকালে ওই গ্রামের সামাদ মাস্টারের বাড়ির পাশের একটি পাট ক্ষেত থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত আল আমিন হোসেনের বাবা মৃত হাসান শেখ মারা যাবার পর থেকে সে সদর উপজেলার মহিষাডঙ্গা গ্রামে নানা লিয়াকত আলীর বাড়িতে বসবাস করতো।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সকালে পাটক্ষেতের পাশদিয়ে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার পথে শিশুরা মরদেহটি দেখতে পায়। পরে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। স্থানীয়দের কাছে খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরাও এসে নিহতের পরিচয় শনাক্ত করে।

নিহতের মামা ইলিয়াস হোসেন জানিয়েছেন, মাস খানেক আগে আল আমিনকে একটি ইজিবাইক কিনে দেয়া হয়েছিল। ‘গতকাল সকালে সে ইজিবাইক নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। সবশেষ সন্ধ্যার পর মুঠোফোনে কথা হলে জানিয়েছিল সে জগদল এলাকায় আছে। মাগুরায় একটি ভাড়া পেয়েছে ওইটা নামিয়ে দিয়েই বাড়িতে ফিরবে। এর পর ফোন বন্ধ হয়ে যাওয়াই তার সাথে আর যোগাযোগ করা যায়নি।

নিহত আল আমিনের ইজিবাইকের সন্ধান পাওয়া যায়নি। স্থানীয় এলাকাবাসী ও পরিবারের সদস্যদের ধারণা ইজিবাইক ছিনতাই করতে গিয়েই আল আমিনকে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম জানান, সকালে এলাকাবাসীর কাছ থেকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মাগুরা সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে। হত্যার কারণ এখনো জানা যায়নি তবে ইজিবাইক ছিনতাই করতেই হত্যা হতে পারে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারনা করছেন তারা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply