আশ জাগিয়েও পারলো না আফগানরা

|

অভিজ্ঞতার কাছেই হেরে গেছে আফগানিস্তান। শেষ পর্যন্ত আশা জাগিয়েও ভক্ত সমর্থকদের নিরাশ করলেন গুলবাদিনরা। পাকিস্তানের কাছে তিন উইকেটের হার নিয়ে মাঠ ছেড়েছে আফগানিস্তান। শনিবার বিশ্বকাপের ৩৫তম ম্যাচে নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে এক দুর্দান্ত জয় তুলে নেয় সরফরাজ বাহিনী। আফগানিস্তানের স্বল্প পুঁজি নিয়ে ব্যাট করতে নেমে শেষ দুই বল পর্যন্ত জয়ের অপেক্ষা করতে হয় পাকিস্তানকে।

বিশেষ করে ইমাদ ওয়াসিমের ৪৯ ও বাবর আজমের ৪৫ রানেই পাকদের জয়ের বন্দরে পৌঁছাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।
২২৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত উইকেট পতন হয় পাকিস্তানের।

এক বাবর আজম ছাড়া দীর্ঘ সময় কেউ স্থায়ী হননি। আফগান বোলারদের দুর্দান্ত বোলিংয়ের মুখে পাকিস্তানি ব্যাটিং অর্ডার যখন কোণঠাসা ঠিক সেই মুহূর্তে দলের হাল ধরেন ইমাদ ওয়াসিম। তার গুরুত্বপূর্ণ ৪৯ রানেই শেষ পর্যন্ত দল জয় পায়।

এরআগে প্রথম ইনিংসে আফগানিস্তানের শুরুতেই দুই উইকেটের পতন হয়। শাহীন আফ্রিদীর জোড়া আঘাতে আফগান শিবিরে কাঁপন ধরে যায়। এরপর আরো একজনের সাজঘরে ফেরা।

তিন ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে বেশ চাপের মুখে পড়ে আফগানিস্তান। তবে এই চাপকে জয় করে লড়েন ইকরাম আলী ও আসগর আফগান। আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে আফগানরা পার করে শতরান। কিন্তু এই দুজনের বিদায়ে চাপে পড়ে তারা। ইকরান আউট হন ২৪ ও আসগর ফেরেন ৪২ রানে। এরপর মোহাম্মদ নবী ১৬ রানে ফেরেন। তাকে সঙ্গ দেয়া নাজিবুল্লাহ জাদরানও আউট হন ৪২ রানে। এছাড়া ওপেনিংয়ে খেলতে নামা রহমত শাহ ৩৫ ও অধিনায়ক গুলবাদিন নায়েব করেন ১৫ রান।

পাকিস্তানের বোলারদের মধ্যে সফল শাহীন আফ্রিদী। আফগানদের ব্যাটিং অর্ডারে বড় ধস নামান এই পেসার। তিনি পেয়েছেন চারটি উইকেট। এছাড়া ওহাব রিয়াজ ২, ইমাদ ওয়াসিম ২ ও সাদাব খান তুলে নেন ১টি করে উইকেট।

বিশ্বকাপে সেমি ফাইনালের টিকিট পেতে জয় চাই পাকিস্তানের। আর এখনো জয়ের দেখা পায়নি নবাগত আফগানিস্তান। এই প্রথম বিশ্বকাপে মুখোমুখি হচ্ছে দু’দেশ। এই ম্যাচে টসে জয় পায় আফগানিস্তান। আফগান অধিনায়ক গুলবদিন নাইব ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply