নিখোঁজ হওয়ার ৪৮ ঘণ্টা পর হাত-পা বাঁধা অবস্থায় ব্যক্তি উদ্ধার

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে মাসুদ রানা বাবু (৩৮) নিখোঁজ হওয়ার ৪৮ ঘন্টা পর হাত-পা বাঁধা অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে নয়’টায় সরাইল-নাসিরনগর-লাখাই আঞ্চলিক সড়কের পাশে সরাইল ফায়ার সার্ভিস স্টেশন এলাকায় নির্জন স্থান থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। সে উপজেলার পাকশিমুল ইউনিয়নের পরমানন্দপুর গ্রামের জহির মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, গত বুধবার সন্ধ্যা ছয়’টার দিকে পরমানন্দপুর নৌ ঘাট এলাকা থেকে বাবু নিখোঁজ হয়। এই ঘটনায় বৃহস্পতিবার সকালে বাবুর স্ত্রী প্রমনী বেগম তাঁর স্বামীকে গুম করা হয়েছে বলে দাবি করে থানায় প্রথমে জিডি ও পরে গুমের মামলা দায়ের করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে পরমানন্দপুর গ্রামের জবর আলীর ছেলে জাকির হোসেন ও আবজর আলীর ছেলে বাছির ভূইঁয়াকে গ্রেফতার করে। পরে ৪৮ ঘন্টা পর খবর পেয়ে হাত ও পা বাঁধা অবস্থায় সড়কের পাশ থেকে বাবুকে জীবিত উদ্ধার করে পুলিশ।

কর্তব্যরত চিকিৎসক কাজী শামসুল আরেফিন বলেন, অচেতন অবস্থায় রাত নয়’টায় তাকে জরুরি বিভাগে আনা হয়। প্রাথমিক পরীক্ষায় দেখা যায় রোগীকে চেতনানাশক কোনো স্প্রে’র মাধ্যমে অজ্ঞান করা হয়েছে। রোগীর শরীরের নানা অংশে সামান্য ফুলা জখম রয়েছে। বর্তমানে রোগী অজ্ঞান অবস্থায় আছে। তবে রোগী ঝুঁকিমুক্ত। চিকিৎসা চলছে।

এদিকে বাবুর স্ত্রী প্রমনী বেগম বলেন, পূর্ব বিরোধের জেরে তারা আমার স্বামীকে গুম করতে চেয়েছিল।

সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন ভূইঁয়া বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে হাত-পা বাঁধা এক ব্যক্তিকে উদ্ধারের পর তা নিখোঁজ বাবু বলে শনাক্ত করে পুলিশ। বাবুর জ্ঞান ফিরে আসলে তার জবানবন্দিতে সকল বিষয় জানা যাবে। এ ঘটনায় গ্রেফতার দুইজনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।









Leave a reply