ফেনীতে তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

|

ফেনী ও পরশুরাম প্রতিনিধি :

ফেনীর পরশুরাম উপজেলার মির্জানগর ইউনিয়নের মধুগ্রামে এবার এক তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে পরশুরাম থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ওই তরুণীর ডাক্তারী পরীক্ষা করার জন্য শুক্রবার তাকে ফেনী জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও ক্ষতিগ্রস্ত তরুণী সূত্রে জানা যায়, পরশুরাম উপজেলার মনিপুর গ্রামের বাহার মিয়ার ছেলে সিএনজি চালক মো. রাসেল গত বুধবার সন্ধ্যায় ওই তরুণীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে পুর্বসাহেবনগর গ্রাম (তরুণীর বড় বোনের বাড়ি) থেকে অটোরিকশাযোগে কৌশলে মির্জানগর ইউনিয়নের মধুগ্রাম কামাল ডাক্তারের নির্জন বাড়ির ছাদে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে রাতভর ধর্ষণ করে বলে ওই তরুণী অভিযোগ করেন। বৃহস্পতিবার সকালে গ্রামের লোকজন ফজরের নামায পড়তে যাবার সময় ওই তরুণীর চিৎকার শুনে এগিয়ে গেলে রাসেল ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়।

ধর্ষণের শিকার তরুণীর বাড়ি ছাগলনাইয়া উপজেলার দক্ষিণ সতের গ্রামে। সে পুর্বসাহেব নগর বোনের শ্বশুর বাড়িতে আসা যাওয়ার সময়ে সিএনজি চালক রাসেলের সাথে পরিচয় ঘটে। বৃহস্পতিবার রাতে তরুণীর পরিবার পরশুরাম থানার এজহার দাখিল করলে পুলিশ সন্ধ্যায় ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে প্রাথমিক সত্যতা পায়। রাতে রাসেলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

পরশুরাম মডেল থানার ওসি তদন্ত মো. খালেদ হোসাইন জানান, এব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে, এজহার নামীয় আসামি গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য ওই তরুণীকে সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply