রিফাত হত্যার বিচার চেয়ে মুশফিক-রুবেলের ফেসবুক স্ট্যাটাস

|

বরগুনায় রাস্তায় ফেলে প্রকাশ্য দিবালোকে স্ত্রীর সামনে রিফাত শরিফকে হত্যার ঘটনায় নাড়া দিয়েছে বিশ্ববিবেক। এ নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে সব মহলে। সব শ্রেণী-পেশার মানুষ এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। ক্রিকেটাররাও এ ঘটনার নিন্দা ও খুনিদের বিচার দাবি করেছেন।

বরগুনার নৃশংস এ হত্যাকাণ্ডের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ছাড়া কেউ রিফাতকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেনি। এ নিয়ে হাইকোর্ট পর্যন্ত বিস্ময় প্রকাশ করেছে। সামাজিক যোগাযোগা মাধ্যম ফেসবুক টুইটারে স্ট্যাটাস দিয়ে অনেকেই এ ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছেন।

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের দুই তারকা মুশফিকুর রহীম এবং রুবেল হোসেনও এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন। নিজেদের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে এ ঘটনায় দায়ীদের বিচার চেয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন মুশি ও রুবেল।

ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়া মুশফিকুর রহীম তার ফেসবুক পেজে লিখেন, ‘আমি মুশফিকুর রহীম এবং আমি রিফাত হত্যার ন্যায়বিচার চাই।

তিনি রিফাত হত্যার ন্যায়বিচার নিশ্চিত চেয়ে একটি হ্যাশট্যাগও (#জাস্টিসফররিফাত) দেন।

একই ভাবে মুশফিকের সতীর্থ পেসার রুবেল হোসেন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমি রুবেল হোসেন এবং আমি রিফাত হত্যার ন্যায়বিচার চাই। তিনিও হ্যাশট্যাগ দেন।

বুধবার (২৬ জুন) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্ত্রী মিন্নিকে বরগুনা সরকারি কলেজে নিয়ে যান রিফাত। কলেজ থেকে ফেরার পথে মূল ফটকে নয়ন, রিফাত ফরাজীসহ আরও দুই যুবক রিফাত শরীফের ওপর হামলা চালায়। এ সময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে তারা।

রিফাত শরীফের স্ত্রী মিন্নি দুর্বৃত্তদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। কিন্তু কিছুতেই হামলাকারীদের থামানো যায়নি। তারা রিফাত শরীফকে উপর্যুপরি কুপিয়ে রক্তাক্ত করে চলে যায়।

পরে স্থানীয় লোকজন রিফাত শরীফকে গুরুতর আহতাবস্থায় উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে রিফাত শরীফের মৃত্যু হয়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply