কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় হাত ভেঙে দিলো স্কুল শিক্ষিকার

|


স্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর
মাদারীপুরের রাজৈরে এক স্কুল শিক্ষিকাকে তার মাদকসেবী দেবর আনোয়ার বেপারী প্রায়ই কু প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। তার কু প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ওই শিক্ষিকাকে তার দেবর পিটিয়ে গুরুতর আহত করে এবং হাত ভেঙ্গে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গুরুতর আহতাবস্থায় ঐ শিক্ষিকা এখন রাজৈর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহত শিক্ষিকা তার দেবরের বিরুদ্ধে রাজৈর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এ ব্যাপারে রাজৈর উপজেলা শিক্ষা অফিসার রওনক আরা বেগম এবং সহকারী শিক্ষা শিক্ষা অফিসার সুমঙ্গল রায় হাসপাতালে গিয়ে শিক্ষিকার চিকিৎসার খোঁজ খবর নিয়েছেন।


এলাকাবাসী ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, আহত স্কুল শিক্ষিকার স্বামী ঢাকায় রঙের কাজ করে। ছেলে মেয়ে লেখা পড়ার সুবাধে এলাকার বাইরে থাকে। এই সুযোগে তার মাদকসেবী দেবর আনোয়ার তাকে প্রায়ই কুপ্রস্তাব দিত। মঙ্গলবার সকালে আনোয়ার ঐ শিক্ষিকাকে আবারও কুপ্রস্তাব দিলে সে রাজী না হওয়ায় মাদকসেবী দেবর আনোয়ার তাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে দেয়। আহত অবস্থায় পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা স্কুল শিক্ষিকাকে উদ্ধার করে রাজৈর হাসপাতালে ভর্তি করে।

গত প্রায় ১০ দিন পূর্বেও আনোয়ার তার বাম চোখে আঘাত করলে চোখ নষ্ট হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে।


আহত শিক্ষিকা জানান, স্বামী সন্তান বাড়িতে না থাকায় আমার দেবর আনোয়ার আমার সাথে অবৈধ সম্পর্ক করতে প্রায়ই চাপ দিত। আমি রাজী না হওয়ায় আমাকে মারপিট করত। আজ সকালেও আমি তার প্রস্তাবে রাজী না হলে স্কুলে যাওয়ার পথে আমাকে পিটিয়ে আহত করে এবং হাত ভেঙ্গে দেয়।


হরিদাসদী-মহেন্দ্রদী ইউপ চেয়ারম্যান রেজাউল মাতুব্বর জানান, আনোয়ার বেপারী নেশা করে এবং তার ভাবীর সাথে খারাপ আচরণ করে। আমরা বার বার সালিশ বৈঠক করলেও তার কোন পরিবর্তন হয় নাই।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত আনোয়ার বেপারীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, আমাকে ফাঁসানোর জন্য আমার ভাবী এসব করছে।

রাজৈর থানার ওসি মোঃ শাহজাহান মিয়া জানান, এলাকায় পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। এব্যাপারে যথাযথা ব্যবস্থা নেয়া হবে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply