তুরস্ক উপকূলে নৌকাডুবিতে নিহত ১২

|

তুরস্কের পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশ মুগলার কাছে এজিয়ান সাগরে ডুবে যাওয়া একটি শরণার্থীবোঝাই নৌকার ৩১ যাত্রীকে উদ্ধার করেছেন দেশটির কোস্টগার্ডের সদস্যরা।

নৌডুবির ওই ঘটনায় কমপক্ষে ১২ শরণার্থী সাগরে ডুবে মারা গেছেন বলে জানায় তুরস্কের কোস্টগার্ড। খবর আনাদোলুর।

গ্রিসে যাওয়ার পথে সোমবার ভোরে ফিলিস্তিন, সিরিয়া, ইয়েমেন ও সোমালিয়ার শরণার্থীবোঝাই ৭ মিটার লম্বা ফাইবারগ্লাসের নৌকাটি তুরস্কের পর্যটন নগরী মুগলার বদরুম উপকূলে ডুবে যায়।

কোস্টগার্ড জানায়, নৌকাটিতে ধারণক্ষমতার অনেক বেশি যাত্রী নিয়ে যাত্রা করার কিছুক্ষণের মধ্যেই পানি উঠতে শুরু করে।

ডুবে যাওয়া নৌকাটির যাত্রীদের উদ্ধার করতে তুরস্কের দুটি উদ্ধারকারী জাহাজ, একটি হেলিকপ্টার ও একটি চৌকস ডুবুরি দল অংশ নেয়।

নিখোঁজ যাত্রীদের এখনও তল্লাশি চালাচ্ছে কোস্টগার্ড। উদ্ধার করা যাত্রীদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্য থেকে এক আদম পাচারকারীকে গ্রেফতার করে তুর্কি পুলিশ।

পুলিশের কাছে ওই পাচারকারী স্বীকার করেছেন, গ্রিসের কস দ্বীপে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে মাথাপিছু ৫ হাজার ইউরো করে নিয়েছেন তিনি।

গত ১৪ বছরে ১৩ লাখেরও বেশি অবৈধ শরণার্থীকে উদ্ধার ও আটক করেছে তুরস্ক। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে ১০ হাজারের বেশি শরণার্থীকে এজিয়ান সাগর থেকে আটক করে ফেরত পাঠিয়েছে। ২০১৮ সালে এ সংখ্যা ছিল ২৫ হাজার ৩৯৮ জন।









Leave a reply