নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে: ফখরুল

|

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

জনগণের সাথে সম্পর্ক নেই বলেই এই সরকারের পায়ের নিচে মাটি নেই, শুন্যের মধ্যে অবস্থান করছে যা বেশি দিন টিকতে পারবে না। জনগণের উত্তারোষের মধ্যে তাদের পরাজয় হবে। এমন মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার দুপুরে তার নিজ জেলা ঠাকুরগাঁও হরিপুর উপজেলা বিএনপি আয়োজিত কর্মী সভায় এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, এই দু:সময়ের মধ্যেও গণতন্ত্রকে উদ্ধারের জন্য দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিকে ছিনিয়ে আনার জন্য প্রস্তুত হতে হবে। সেই সাথে আন্দোলনের মাধ্যমে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে সরকারকে বাধ্য করতে হবে।

মহাসচিব নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে আরো বলেন, বিএনপি গোপন ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের রাজনীতি করেনা। বিএনপি এই নির্বাচন ও সংসদকে অবৈধ বলার পরও শুধু রাজনৈতিক কৌশলগত কারণে ও দলের প্রত্যেকের নিজ স্থানে কথা বলার সুযোগ করে দেয়ার জন্য্ চারজন এমপি সংসদে শপথ নিয়েছে ।

তিনি আরো বলেন, দেশে বর্তমানে কোন দল নেই, আওয়ামীলীগও নেই, শুধু রয়েছে পুলিশ । পুলিশই এখন দেশ চালাচ্ছে। আওয়ামীলীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, তাদের আর জনগণের প্রয়োজন নেই বলেই তারা শুধু পুলিশ ও বন্দুক পিস্তল নিয়ে রয়েছে। ২০০৮ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে তারা সরাসরি বাকশল না করলেও কৌশল পরিবর্তন করে একই ভাবে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছে যা বাকশালেরই সমান।

এবার যে বাজেট তৈরী করা হয়েছে তা শুধু মন্ত্রনালয়ের উপদেষ্টা ,মন্ত্রী ও লুটেরাদের জন্য। যারা হাজার হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে শোধ করেন না। মানুষের প্রকৃত আয় অনেক কমে গেছে অথচ এই বাজেটে গরীবরা আরো গরীব আর উচ্চবিত্তরা আরো ধনী হচ্ছে। সরকার শুধু উন্নয়নের কথা বলে সাধারন মানুষের সাথে প্রতারনা করে যাচ্ছে। তাই হতাশা না হয়ে জনগণকে সাথে নিয়ে দেশের এই সংকট থেকে বেরিয়ে আসতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে প্রতিবাদ করার আহবান জানান ফখরুল।

এসময় হরিপুর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আসগর আলীর সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যের মধ্যে জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান ছাড়াও উপজেলা ,থানা ও ইউনিয়ন বিএনপির অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। হরিপুর কর্মী সভা শেষে তিনি বিকালে রাণীশংকৈল ও পরে পীরগঞ্জে পৃথক আরো দুটি দলীয় সভা করেন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply