একই অস্ত্রে পরস্পরকে ঘায়েল করতে চায় ভারত ও নিউজিল্যান্ড

|

বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম দুটি ম্যাচে জয় পেয়েছে ভারত। অন্যদিকে নিজেদের প্রথম তিনটি ম্যাচ জিতে বর্তমানে লিগ শীর্ষে নিউজিল্যান্ড। ভারত দু’বার বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হলেও, এখনও পর্যন্ত একবারও চ্যাম্পিয়ন হয়নি ব্ল্যাক ক্যাপস। গতবার ফাইনালে উঠলেও সেই স্বপ্ন পূর্ণ হয়নি।

চলতি সপ্তাহের বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের লড়াইয়ে একেঅপরের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে এই দুই প্রতিদ্বন্দ্বী। এখনও পর্যন্ত টুর্নামেন্টে এই দু’দলই অপরাজিত। বিশ্বকাপে এখনও পর্যন্ত সাতবার মুখোমুখি হয়েছে এই দুই দল। কিউয়িরা এগিয়ে ৪-৩ ব্যবধানে। শেষবার ২০০৩ বিশ্বকাপে মুখোমুখি হয়েছিল তারা। জয় পেয়েছিল সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন ভারতীয় দল।

চলতি বিশ্বকাপে বিশেষজ্ঞদের কাছে অন্যতম ফেভারিট ভারত। সেই তুলনায় নিউজিল্যান্ডকে নিয়ে তেমন কথা হয়নি। তবে প্রথম তিন ম্যাচে নিজেদের ছাপ ভালো মতনই রেখেছে কিউয়িরা।

যার অন্যতম কারণ তাদের পেস বোলিং। প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে দুরমুশ করে তারা। সৌজন্যে হেনরির তিন উইকেট এবং ফার্গুসনের তিন উইকেট। দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের বিরুদ্ধেও ছবিটা একই ছিল। হেনরি নেন চার উইকেট। বোল্টের দখলে দুটি। আফঘানিস্তানের বিরুদ্ধে তৃতীয় ম্যাচে একাই পাঁচ উইকেট নেন জেমস নিশাম। চার উইকেট ছিল ফার্গুসনের দখলে। ট্রেন্ট বোল্ট তো রয়েছেনই।

সেই দিক দিয়ে দেখতে গেলে পিছিয়ে নেই ভারতীয় দলও। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে শেষ ম্যাচে তিনটি করে উইকেট পেয়েছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার এবং জাসপ্রীত বুমরাহ। প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে দুটি করে উইকেট পেয়েছিলেন বুমরাহ এবং ভুবনেশ্বর। প্রথম দু’ম্যাচে দলে ছিলেন না মহম্মদ শামি। শোনা যাচ্ছে তৃতীয় ম্যাচে তিনি দলে ঢুকতে পারেন।

বিশেষজ্ঞদের মতে অস্ট্রেলিয়া ম্যাচের চেয়েও, নিউজিল্যান্ড ম্যাচ ভারতের কাছে বেশি কঠিন। কারণ ব্যাটিং ছাড়াও, বোলিংয়ে কিউয়িরা দুরন্ত পারফরমেন্স করছেন।









Leave a reply