নুসরাতের পরিবার নিয়ে পুলিশের ঈদ আয়োজন

|

ফেনী প্রতিনিধি:

ফেনীর সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নিহত নুসরাত জাহান রাফির পরিবারকে নিয়ে ঈদ উদযাপন করেছে ফেনীর ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার কাজী মনিরুজ্জামান। বৃহস্পতিবার দুপুরে ফেনীর সোনাগাজী থানায় নুসরাতের বাবা ও দুই ভাই পুলিশের এ আয়োজনে অংশ নেয়।

নুসরাত জাহান রাফিকে হারিয়ে পুরো পরিবার এখনও বাকরুদ্ধ। তাদের পরিবারে বইছে বেদনা। সে শোকাহত পরিবারকে সান্ত্বনা দেয়ার জন্য ফেনীর সোনাগাজী থানায় আয়োজন করা হয় প্রীতিভোজ। এতে অংশ নেয় নুসরাতের বাবা মাওলানা একেএম মুসা, নুসরাতের বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান ও ছোট ভাই রাশেদ রায়হান।

ফেনীর পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) কাজী মনিরুজ্জামান তাদের সার্বিক খোঁজ খবর নেন এবং ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। তিনি জানান, শুধু ঈদে নয়; সব সময় নুসরাত পরিবারের সাথে পুলিশের সম্পর্ক থাকবে। নুসরাতের পরিবার পুলিশ প্রশাসনের পরিবার।

নুসরাতের বাবা মাওলানা একেএম মুসা জানান, আমাদের জন্য ঈদ আসেনি। আমার কলিজার টুকরা মুক্তা (নুসরাত জাহান রাফির বাবার দেয়া নাম) কবরে ঘুমাচ্ছে, আমাদের কীসের ঈদ? তবুও বেদনার এই মুহূর্তে পুলিশের এই আয়োজনে আমাদের পুরো পরিবার আনন্দিত। পুলিশ প্রশাসন আমাদের সব ধরনের খোঁজ খবর রাখছেন।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ২৭ মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়ের দায়ে ওই মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে আটক করে পুলিশ। পরে ৬ এপ্রিল ওই মাদরাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগীরা তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা ৫ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে মারা যায় নুসরাত জাহান রাফি।









Leave a reply