শ্বশুর বাড়ি এসে গাছের সাথে শিকল বন্দি জামাই

|

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি
মেয়েকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করার অভিযোগে জামাইকে শিকল দিয়ে বন্দি করে রাখার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজনের উপর। ঘটনাটি ঘটেছে চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার হ্যালিপ্যাড পাড়ায়। শিকল বন্দি জামাই ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার শ্যামকুড় গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে সোহরাব হোসেন (৩০)।

এদিকে জামাইকে শিকল বাঁধা ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তুমুল সমালোচনা শুরু হয়। এ ঘটনায় জীবননগর থানা পুলিশ সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে স্ত্রী নীলা, শাশুড়ি মেহেরযান ও মামা শ্বশুর মোসলেম উদ্দীনকে আটক করেছে।

স্থানীয়রা জানায়, রোববার রাতে জীবননগর উপজেলার হ্যালিপ্যাড পাড়ার জনৈক হারেজ উদ্দীনের বাড়িতে বেড়াতে আসে তার জামাই সোহরাব হোসেন। এরপর শুরু হয় উত্তপ্ত কথাবার্তা। এক পর্যায়ে জামাইকে শিকলবন্দী করে বাড়ির উঠানে মাচাতে শুইয়ে রাখা হয়। সকালে বেঁধে রাখা হয় গাছের সাথে। সারাদিন এভাবেই রাখা হয় তাকে।

শিকলবন্দি সোহরাব জানায়, গত ৮-১০ দিন আগে মোবাইলে টাকা ভরাকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটি হয় স্ত্রী নিলার সাথে। এক পর্যায়ে আমি আমার স্ত্রী নিলাকে হাতে আঘাত করি। তারপর সে আমার উপর রাগ করে কন্যাকে নিয়ে বাবার বাড়ি জীবননগরে চলে আসে। আমি রোববার সন্ধ্যায় আমার স্ত্রী ও সন্তানকে ঈদের জামা কাপড় দিতে আসলে আমার শ্বশুর বাড়ির লোকজন প্রথমে মারপিট করে। পরে আমাকে লোহার শিকল দিয়ে গাছের সাথে তালাবদ্ধ করে রেখেছে।

স্ত্রী নিলা জানায়, ৭-৮বছর আগে শ্যামকুড় গ্রামের আব্দুল হামিদের ছেলে সোহরাব হোসেনর সাথে উভয় পরিবারের দেখাদেখিতে বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনের একটি কন্যা সন্তান আছে। তার দাবি বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই স্বামী তাকে নানা অজুহাতে মারপিট করতে শুরু করে। ইতিমধ্যে য্যেতুক বাবাদ কয়েক দফায় সোহরাবকে দেওয়া হয়েছে পাঁচ লক্ষ টাকা। তারপরও স্বামীর সংসারে সুখী হতে পারিনি। কয়েকদিন আগে মোবাইলে ১০ টাকা ভরার অপরাধে আমাকে মারপিট করে হাত ভেঙ্গে দিয়েছে স্বামী সোহরাব।

শ্বশুর হারেজ উদ্দীন জানান, আমার মেয়েকে মারপিট করার কারণে জামাই সোহরাব হোসেনকে শিকল দিয়ে তালা বদ্ধ করে রেখেছি। সে পালিয়ে যাবার পর তার বাবা-মা আমাদের নামে যেনো মিথ্যা গুম মামলা দিতে না পারে এ জন্য তাকে আটকিয়ে রেখেছি। তার বাবা-মা আসলে আমরা তাকে তাদের হাতে তুলে দেবো।

এদিকে, শ্বশুর বাড়িতে জামাইকে শিকলবাঁধা ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দৃশ্যটি দেখতে জীবননগরের হ্যালিপাড পাড়ার হারেজ উদ্দীনের বাড়িতে উৎসুক জনতার ভিড় জমতে শুরু করে। দিনভর বিভিন্ন এলাকার লোকজন জামাইকে বেঁধে রাখার দৃশ্য দেখতে আসে।

জীবননগর থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ গণি মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,শ্বশুর বাড়িতে জামাইকে নির্যাতন ও শিকল বেঁধে রাখার ঘটনায় সোমবার রাতে অভিযান চালিয়ে স্ত্রী নীলা খাতুন,শাশুড়ি মেহেরযান বেগম ও মামা শ্বমুর মোসলেম উদ্দীনকে আটক করা হয়েছে।









Leave a reply