বগুড়ায় ভিপি নুরের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, সাংবাদিকসহ আহত ৫

|

বগুড়া ব্যুরো:

বগুড়ায় ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুরুকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করেছেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। রোববার বিকেলে শহরের সরকারি গণগ্রন্থাগারের সামনে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

নুরু সেখানে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের বগুড়া জেলা শাখার ইফতার মাহফিলে যোগ দিতে এসেছিলেন। হামলায় নূরসহ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ৪ নেতা ও যমুনা টেলিভিশনের ভিডিওগ্রাফার শাহনেওয়াজ শাওন আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঢাকা থেকে সড়কপথে বগুড়ায় পৌঁছে নুরু যখন নেতাকর্মীদের নিয়ে গণগ্রন্থাগারের মিলনায়তনে প্রবেশ করছিলেন, তখনই জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাসের নেতৃত্বে তাকে বাধা দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক তাকভির, প্রচার সম্পাদক মুকুল ইসলাম ও সরকারি আজিজুল হক কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রউফের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের ১৫/২০ জন নেতাকর্মী ভিপি নূরকে মাটিতে ফেলে বেধড়ক মারপিট করে। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে আহত হন তার আরো তিন জন সফরসঙ্গী।

এসময় হামলার ছবি ধারণ করতে গেলে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা মারপিট করে যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরাপারসন শাহনেওয়াজ শাওনকে। তারা যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরা ভাঙচুরের চেষ্টাও চালায়।

পরে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতারা রক্তাক্ত আহত ভিপি নূর ও তার আহত সফরসঙ্গীদের উদ্ধার করে শহরের মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক রোকাইয়া আকতার অ্যানি আহত নুরকে ভর্তির পরামর্শ দিলেও তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে সেখান থেকে বেরিয়ে যান।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক বিন ইয়ামিন মোল্লা জানান, নিরাপত্তাহীনতার কারণে নূরসহ আহতদের অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাইমুর রহমান তিতাস দাবি করছেনে, ছাত্রশিবিরের নেতাদের নিয়ে ভিপি নূর বৈঠক করছেন এমন খবর পেয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের প্রতিহত করেছেন। এসময় গণমাধ্যমকর্মীদের মারপিটের ঘটনায় দুঃখও প্রকাশ করেন তিতাস।









Leave a reply