ঠাকুরগাঁওয়ে কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগ

|

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি:

ঠাকুরগাঁওয়ে এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার রাতে সদর উপজেলা শুখানপুকুরী ইউনিয়নের পশ্চিমপাড়া গ্রামে এঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার সকালে নির্যাতিতা কিশোরীকে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং দুপুরে তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা হয়নি।

ক্ষতিগ্রস্থ নির্যাতিতা কিশোরীর বাবার অভিযোগ, বেশ কয়েকমাস পূর্ব থেকে প্রাইভেটে যাওয়া আসার পথে একই ই্উনিয়নের সড়লাডুবি গ্রামের মিলন রায় সহ কয়েকজন বখাটে তার মেয়েকে কুপ্রস্তাব দিয়ে বিরক্ত করে আসছিলো। তার মেয়ে তাদের কুপ্রস্তাবে রাজি না হলে অত্যাচার আরো বেড়ে যায়। এবছর তার মেয়ে এসএসসি’তে ভালো ফলাফল করে। ফলাফল প্রকাশ হওয়ার পর থেকে বখাটে মিলন আবারো বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কুপ্রস্তাব দিলে তার মেয়ে বিষয়টি পরিবারের লোকদের জানায়। একথা মিলন জানতে পেরে মেয়েকে দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।

বুধবার রাতে প্রকৃতির ডাকে মেয়ে ঘর থেকে বাইরে বের হলে বখাটে মিলন সহ তার বন্ধু সঞ্জয় রায় ও সতিশ রায় তার মুখ চেপে ধরে জোড় করে বাড়ির কিছু দুরে নির্জন এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েকে ধর্ষন করে পালিয়ে যায় মিলন। পরে রাতে মেয়েকে বাসায় না পেয়ে আশেপাশে খোঁজ করে নির্জন এলাকা থেকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে পরিবারের লোকজন। এঘটনায় দোষীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন ক্ষতিগ্রস্থ নির্যাতিতা পরিবারের লোকজন।

সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রোকেয়া সাত্তার জানান, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নির্যাতিতা কিশোরীর শারীরিক অবস্থা খুবই দূর্বল। ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নমূনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরবর্তীতে সংগ্রহকৃত নমূনার চূড়ান্ত রিপোর্ট হাতে এলে তা প্রকাশ করা হবে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ওসি আশিকুর রহমান জানান, এবিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।









Leave a reply