সেলফি তুলে কারাগারে তরুণ!

|

কথায় কথায় সেলফি তোলাকে বিশেষ ধরনের মানসিক রোগ বলে আখ্যা দিয়েছেন মনোবিজ্ঞানীরা।

অনেকেই দিনের সব ঘটনা ক্যামেরা বন্দি করে রাখতে বেশ ভালোবাসেন। জরুরি, তুচ্ছ সব ঘটনাতেই তারা সঙ্গে থাকা মোবাইল ক্যামেরাতে ক্লিক করেন।

বিভিন্ন স্থানে এমন সেলফি প্রিয় মানুষদের বিড়ম্বনাতে পড়তে হয় অনেককে। এ নিয়ে বিভিন্ন স্থানে সেলফি তোলা নিষেধ লেখা নোটিশও ঝুলতে দেখা গেছে। কোথাও কোথাও নির্দেশ অমান্য করলে জরিমানার কথাও লেখা রয়েছে।

তবে সম্প্রতি ভারতের পাঞ্জাবের এক তরুণের সেলফি তোলার অপরাধে জরিমানা হয়নি একেবারে গ্রেফতার করে তাকে কারাগারে নিয়ে গেছে পুলিশ।

ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, সম্প্রতি হয়ে গেল ভারতের লোকসভা নির্বাচন। সেই নির্বাচনে ভোট দিতে গিয়ে পাঞ্জাবের এক তরুণ ভোটকেন্দ্রের ইভিএম মেশিনের সঙ্গে সেলফি তোলে। এর পর ওই তরুণ ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে দেয়। তার সেই ছবি নিয়ে অজ্ঞাত এক যুবক স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়িতে অভিযোগ করেন। এর পর পুলিশ সেই তরুণকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমকে পাঞ্জাব পুলিশ জানায়, অভিযুক্ত ওই তরুণের নাম শাহনাদ আলম। তিনি ইভিএম মেশিনের সঙ্গে সেলফি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। শুধু তাই নয়, তিনি কোনো দলকে ভোট দিয়েছেন তাও ওই সেলফিতে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছিল। এটি ভারতীয় আইনে অপরাধ বলে ধরা হয়।









Leave a reply