ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধকে ‘নাজায়েজ’ বলায় দাওয়াত পেলেন সৌদি গ্র্যান্ড মুফতি

|

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা নাজায়েজ উল্লেখ করে এবং ইহুদি নিধনের নিন্দা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন সৌদি আরবের সর্বোচ্চ ধর্মীয় কর্তৃপক্ষ গ্র্যান্ড মুফতি আব্দুল আজিজ আল শেখ। পাশাপাশি, ইসরায়েল বিরোধী, প্যালেস্টাইনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসকে ‘সন্ত্রাসী সংগঠন’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। গ্র্যান্ড মুফতির এ বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছেন ইসরায়েলের যোগাযোগ মন্ত্রী আইয়ুব কারা। শুধু তাই নয়, গ্র্যান্ড মুফতিকে ইসরায়েল ভ্রমণের আমন্ত্রণও জানিয়েছেন তিনি।

সংবাদমাধ্যম ডেইলি সাবাহ জানায়, সম্প্রতি জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সহিংসতা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ইসরায়েলের পক্ষে এ ধরনের মন্তব্য করেন গ্র্যান্ড মুফতি। এ সময় তিনি প্যালেস্টাইনের গাজা উপত্যকার শাসক দল হামাসকে সন্ত্রাসী দল আখ্যায়িত করেন।

এ প্রেক্ষিতে, সোমবার এক টুইট বার্তায় গ্র্যান্ড মুফতি আব্দুল আজিজ আল শেখের মন্তব্যের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন ইসরায়েলের যোগাযোগমন্ত্রী আইয়ুব কারা। লিখেছেন, ‘সৌদি গ্র্যান্ড মুফতি ও মুসলিম আলেমদের প্রধান আবদুল আজিজ আল-শেখ ইহুদিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ও তাদের হত্যাকে নিরুৎসাহিত করে যে ফতোয়া দিয়েছেন আমরা তার প্রশংসা করছি।’

ইসরায়েলের মন্ত্রী আরো লিখেছেন, ‘আবদুল আজিজ হামাসকে সন্ত্রাসী দল বলে ঘোষণা দিয়েছেন। প্রশংসনীয় এ মন্তব্যের জন্য তাঁকে ইসরায়েলে নিমন্ত্রণ জানানো হলো। তাঁকে সর্বোচ্চ সম্মান নিয়ে স্বাগত জানানো হবে।’

১৯৬৭ সালে আরব-ইসরায়েল যুদ্ধের সময় প্যালেস্টাইনের পূর্ব জেরুজালেম ও পশ্চিম তীরে  দখল করে নেয় ইসরায়েল। দীর্ঘদিন দখল করে রাখার পর ১৯৮০ সালে এলাকা সমূহকে সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করে তারা। অবশ্য, এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পায়নি ইসরায়েল।

যমুনা অনলাইন : টিএফ

 









Leave a reply