চুয়াডাঙ্গায় হত্যা,ডাকাতি ও চাঁদাবাজি মামলার আসামীসহ ১৩ জন গ্রেফতার

|

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:

চুয়াডাঙ্গা শহরের শান্তিপাড়া এলাকার নির্মাণাধীন একটি চারতলা ভবন থেকে হত্যা, চাঁদাবাজি ও ডাকাতিসহ বিভিন্ন মামলার ১৩ জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার রাত ১১টার দিকে দুই ঘন্টার শ্বাসরুদ্ধকর অভিযান শেষে তাদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলো-শহরের পৌর এলাকার শান্তিপাড়ার ইউসুফ আলীর ছেলে শীর্ষ সন্ত্রাসী আকাশ (২৪), সানোয়ার হোসেনের ছেলে রামিম (১৯), মৃত আলী রেজার ছেলে গোলাম মোস্তফা মদন (৪৫) ও গোলাম রসুল টিটু (৪২), মৃত আমির আলীর ছেলে জহির উদ্দীন বাদল (৪০), জালাল উদ্দীনের ছেলে বাহাউদ্দীন (২০), ইউনুস আলীল ছেলে ইভন (২২), সফুর আলীর ছেলে কাজল (১৯), জাহাঙ্গীর আলীর ছেলে পিয়াস (২০), একই এলাকার ছোট জাহাঙ্গীরের ছেলে আশরাফ (২২), পার্শ্ববর্তী মুসলিমপাড়ার আপান শেখের ছেলে আলামিন (২৩), গুলশান পাড়ার আনু শেখের ছেলে কালু শেখ (৩৫), ও পলাশ পাড়ার বাবর আলীর ছেলে লিটন (২৭)।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আবু জিহাদ ফকরুল আলম খাঁন জানান, শান্তিপাড়া এলাকার নির্মাণাধীন চারতলা একটি ভবনে ১০/১৫ জন দূর্বৃত্ত গোপনে অবস্থান করছে এমন খবর পায় পুলিশ। গোপন সংবাদে এমন খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল রাত ১১টার দিকে বাড়িটি ঘেরাও করে। বাড়ির ভিতরে দূর্বৃত্তদের উপস্থিতি টের পেয়ে আরও অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয় ঘটনাস্থলে। এরপর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো: কলিমুল্লাহর নেতৃত্বে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অভিযান শুরু করে। এ সময় চারতলা ভবনের বিভিন্ন কক্ষ ও টয়লেট থেকে একে একে গ্রেফতার হয় ১৩ জন।

পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম (বার) জানান, গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে আকাশ কেদারগঞ্জ এলাকার ব্যবসায়ী গোলাম হত্যা মামলার এক নম্বর আসামী। রামিম, টিটু ও বাদলও দাগী সন্ত্রাসী। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি চাঁদাবাজিসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। বাকী ৯ জনের নামেও মাদকের মামলা আছে। গ্রেফতারকৃতরা শহরে বড় ধরণের সন্ত্রাসী কার্যক্রম বা ডাকাতির উদ্দেশ্যে ওই চারতলা ভবনে গোপনে বৈঠক করছিলো বলে জানান পুলিশ সুপার। গ্রেফতারের পর তাদেরকে থানা কাস্টডিতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।









Leave a reply