কলাপাড়ায় শ্যালিকাকে ধর্ষণ, সহযোগী গ্রেফতার

|

পটুয়াখালী প্র‌তি‌নি‌ধিঃ

শ্যালিকা দশম শ্রেণির ছাত্রীকে অপহরণ করে কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলে নিয়ে এসিড নিক্ষেপ ও মৃত্যুর ভয় দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে দুলাভাই সুলেমান হাওলাদার (৩০)।

কৌশলে বুধবার ওই ছাত্রী পালিয়ে এসে বাসায় পৌছলে রাতে কলাপাড়া থানায় দুলাভাই সুলেমান হাওলাদার ও তার সহযোগী মো. মিলনকে আসামি করে ভিকটিমের ভাই মো. নাঈম ইসলাম নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেছেন।

পুলিশ মূল হোতাকে গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে সহযোগী মিলনকে গ্রেফতার করে বৃহস্পতিবার আদালতে সোপর্দ করেছে। প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে বলে দাবি করেছে।

মামলার বিবরণে জানা গেছে, গত ৮ মে বিকেল তিনটার সময় ওই ছাত্রী শ্যালিকাকে কয়েক সহযোগী নিয়ে দুলাভাই আজিমপুর গ্রামের বাসিন্দা সুলেমান হাওলাদার কলাপাড়া পৌরশহর থেকে হোন্ডায় তুলে অপহরণ করে নেয়। ছাত্রী ইটবাড়িয়ার বাসা থেকে শহরে আসছিল। ইতোপূর্বে স্কুলে আসার পথে উত্যক্ত করা হতো। ওই ছাত্রীকে কুয়াকাটা সমুদ্র রিসোর্ট আবাসিক হোটেলের ১০১ নম্বর কক্ষে আটকে রাখা হয়। ১২ মে পর্যন্ত ওই হোটেলে আটকে একাধিকবার ধর্ষণ করে দুলাভাই। ১৩ মে কুয়াকাটা থেকে ঢাকায় নিয়ে যায়। আবার ১৪ তারিখ কুয়াকাটায় ফেরে। ১৫ মে বুধবার সকালে কৌশলে পালিয়ে বাসায় আসে ওই ছাত্রী।

কলাপাড়া থানার ওসি মো. মনিরুল ইসলাম জানান, মূল আসামি সুলেমানকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।









Leave a reply