সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে নোয়াখালীতে কলেজছাত্র খুন

|

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভায় সিনিয়র জুনিয়র দ্বন্ধে জুহায়ের হোসেন (২০) নামে এক কলেজছাত্রকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে চৌমুহনী পৌরসভার আলীপুর দিঘীর পাড়ে এ হত্যার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত পুলিশ ৮ জনকে আটক করেছে।

নিহত জুহায়ের হোসেন ওই এলাকার বেলাল হোসেনের ছেলে। তিনি নোয়াখালী সরকারি কলেজের ছাত্র ছিলেন।

আটককৃতরা হলেন মিরওয়ারিশপুর এলাকার আজিম হোসেনের ছেলে আবিদ হোসেন ও তার সহযোগী ফাহিমসহ আটজন।

জানা গেছে, সিনিয়র জুনিয়রের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কয়েকদিন আগে আটক আবিদের বন্ধু রাকিবকে মারধর করা হয়। এ ঘটনার জন্য কলেজছাত্র জুহায়েরকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে দিঘীর পাড়ে আসেন আবিদ, আশরাফ ফাহিম ও তার কয়েক বন্ধু।

এ সময় জুহায়ের, আবিদ ও তাদের বন্ধুদের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এর এক পর্যায়ে জুহায়েরের কয়েকজন বন্ধু তাকে বাড়ির দিকে নিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় আবিদ জুহায়েরকে পেছন থেকে ধরে টেনে পুনঃরায় দিঘীর পূর্ব পাড়ে নিয়ে এলে জুহায়েরের চিৎকার শুনতে পায় তার বন্ধুরা।

পরে তারা এগিয়ে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় জুহায়েরকে পড়ে থাকতে দেখে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

বেগমগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মো. শাহজাহান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ধারণা করা হচ্ছে জুহায়েরকে পেছন থেকে ধরে নিয়ে তার বুকে ছুরি মারে আবিদ। ছুরিবিদ্ধ জুহায়েরকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও বলেন, ঘটনার পর ঘটনাস্থলের আশপাশে অভিযান চালিয়ে দুইজন ও নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আরও ছয়জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।









Leave a reply