ত্রিশালে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে মারধর

|

ময়মনসিংহের ত্রিশালে জেএসসি পরীক্ষা দিতে এসে কেন্দ্রের সামনে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়েছে ছাত্রীরা। এসময় প্রতিবাদ করায় এক শিক্ষককে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে বখাটেরা। আহত ঐ শিক্ষকের নাম আবুল মুনসুর। তিনি ত্রিশাল বিয়ারা পাটুলী রহমত উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক।

গুরুতর আহত ঐ শিক্ষককে ত্রিশাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি যমুনা নিউজকে জানান, ত্রিশালে জেএসসি পরীক্ষার ভেন্যু নজরুল কলেজের গেইটে প্রতিদিন পরীক্ষার হলে প্রবেশের সময় মেয়েদের ইভটিজিং করে বখাটেরা। ইভটিজিংয়ের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় ছাত্রীরা বিষয়টি শিক্ষককে জানান। মঙ্গলবার পরীক্ষার হলের ফটকে বখাটেদের হাতেনাতে ধরেন শিক্ষক আবুল মনসুর। এসময় তিনি বখাটেদের নিভৃত করার চেষ্টা করে না পেরে পরীক্ষার হলে চলে যান এবং পরীক্ষার হলের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রদীপ রঞ্জনকে বিষটি জানান। এরপর পরীক্ষার ডিউটি শেষে হল থেকে বের হওয়ার পর ১০ থেকে ১২ জন  বখাটে তাকে আক্রমণ করে। এসময় শিক্ষার্থীদের সামনেই শিক্ষককে মারধর করে বখাটেরা। আক্রান্ত ঐ শিক্ষক যমুনা নিউজকে বলেন, আমি একজন শিক্ষক আর আমাকে ছাত্রদের সামনে পিটানো হলো। মেয়েদের রক্ষা করা কি আমার অপরাধ। আমি আমার ছাত্রদের সামনে আর আমার এই মুখ দেখাবো না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন ছাত্রী জানান, উপজেলার ইউনিয়ন পর্যায় থেকে মেয়েরা ত্রিশাল সদরে জেএসসি পরীক্ষা দিতে এসে স্থানীয় বখাটেদের হাতে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়।

এ ব্যাপারে ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুজাফর রিপন জানান, আহত শিক্ষককে প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসার ব্যাবস্থা করা হয়েছে ও হামলাকারীদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে। ত্রিশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাকিউর রহমান জানান, হামলার ঘটনায় পুলিশ ব্যাবস্থা নিচ্ছে। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাহমিনা আক্তার  জানান, আহতের মুখে ও মাথায় আঘাত লেগেছে। তিনি এখন আশংকামুক্ত।

যমুনা অনলাইন/এইচকেএফ









Leave a reply