বেপরোয়া চালক, অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন ঢাবির বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী

|

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের বহন করা একটি বাস বড় ধরনের দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। এতে বড় ধরনের ঘটনা থেকে অল্পের জন্য বেঁচে বাসটিতে থাকা বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীরা।

বাসটিতে থাকা শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, চালক বেপরোয়া গতিতে ডাবল ডেকার বাসটি নিয়ে মগবাজার ফ্লাইওভারের নিচু অংশে ঢুকে পড়েন। অতিরিক্ত গতি থাকায় ফ্লাইওভারের ছাদে ধাক্কা খেয়ে বাসটির উপর তলার সামনের একাংশ দুমড়েমুচড়ে যায়। বাসের উপর তলায় থাকা কয়েকজন শিক্ষার্থী গুরুতর আহত হয়েছেন। তবে কারো অবস্থা আশংকাজনক নয় বলে জানা গেছে।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ফেসবুকে তাদের ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা শেয়ার করছেন।

হিমেল নামে একজনের পোস্ট এখানে তুলে ধরা হলো, “বলতে গেলে জীবন বেচে গেল অল্পের জন্য। আজ ৪.১০ এর কিঞ্চিৎ এ করে ক্যাম্পাস থেকে ওয়ারলেস যাবার উদ্দেশ্যে রওনা হই। সামনের দিকের সিটে বসা ছিলাম। কিন্তু ঘুমের ঘোরে স্টপেজ মিস হয়ে যেতে পারে ভেবে বাস মগবাজার আসার পর নিচে নেমে সিড়িতে দাড়াই। কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই বিকট শব্দ। কি হলো কিছু বুঝতে পারলাম না। সবার হৈ হুল্লোড় লেগে যায়। সাথে সাথে নেমে দেখি এই অবস্থা। মগবাজার থেকে ওয়ারলেস যাবার পথে ড্রাইভারের অনিয়ন্ত্রিত বাস চালানোর ফলে ফুল স্পীডের বাস মগবাজার ফ্লাইওভারের উপরের পিলারের সাথে ধাক্কা লাগিয়ে বাসের দোতালার একটা পাশ পুরো স্ম্যশড করে দেয়। বেশ কয়েকজনে মাথায় কাচ ভেঙে আঘাত করে এবং হাত কেটে যায়। তাদের সবাইকে নিকটস্থ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার জন্য সবাই নিয়ে যায়। বড় কোন আঘাতপ্রাপ্ত কেউ হয় নি আলহামদুলিল্লাহ। তবে উপস্থিত সবাই ও বলতেছিল এবং যে কেউ দেখলেও বুঝবে এই এক্সিডেন্টএর ভয়াবহতা। ঘটনাস্থলের আতঙ্ক বুঝানোর মত না। আজকে ঝরে যেতে পারতো অনেকের জীবন, যদিনা বাসের দোতালার সামনের সিটগুলো অনেকটাই খালি না হয়ে যেত। বুঝিনা কি ধরনের ড্রাইভার দের এই বাস চালনায় নিয়োজিত করা হয়। সংগত কারনে রক্তের কোন ছবি সংযুক্ত করলাম না। এইসব বাস ড্রাইভারের হাতে এত মানুষের জীবন জিম্মি হয়ে আছে। অন্যান্য রুটের কিছু কিছু ড্রাইভার এর বিরুদ্ধেও এমন অভিযোগ পাওয়া যায়। এদের লাইসেন্স কীভাবে থাকে!”

এছাড়া ফাইয়াজ নামে আরেকজন লিখেছেন, “৪টা ১০ এর কিঞ্চিৎ বাসের একটি দৃশ্য এটি।আজ বিকেলে মগবাজার থেকে ওয়ারলেস যাওয়ার পথে ড্রাইভারের অনিয়ন্ত্রিত বাস চালনার দরূন বাসটির একপাশে মগবাজার ফ্লাইওভারের একটি পিলারের সাথে মারাত্মকভাবে ধাক্কা লাগে।সাথে সাথে বাসের ঐ অংশটি ভেঙ্গে যায়।মাথায়,হাতে কাঁচ লেগে আহত হয় অনেক শিক্ষার্থী।বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের মত একটি সেনসিটিভ বিষয় যার সাথে হাজারখানেক মেধাবী শিক্ষার্থীর জীবন জড়িত সেখানে এধরণের লোকেরা লাইসেন্স পায় কিভাবে প্রশ্ন রইলো!”

অন্য একজন লিখেছেন, “অল্পের জন্য বেচে গেলাম! আজকে ৪:১০ এর কিঞ্চিৎ বাস মগবাজার দিয়ে আসার সময় ফ্লাইওভারের সাথে ধাক্কা লেগে এই অবস্থা হয়। আমি বাস এর সামনে অন্য পাশে বসা ছিলাম তাই আল্লাহর রহমতে আমার তেমন কিছু হয়নি।”





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply