ভারতের ওড়িষায় আঘাত হানার পর ফণি এখন পশ্চিমবঙ্গে

|

ভারতের ওড়িষায় আঘাত হানার পর শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ফণি এখন অবস্থান করছে পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায়। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে মধ্যরাত থেকে সকালের মধ্যে বাংলাদেশের খুলনা উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

ভারতে ওড়িষায় ভূমিতে আঘাত হানার পর ফণির গতিবেগ কিছুটা কমলেও এখন সেটি বেশ শক্তিশালী অবস্থায় রয়েছে। রোববার খুলনা উপকূল দিয়ে ঢুকে যশোর, কুষ্টিয়া, নড়াইল, মেহেরপুর অতিক্রম করে এটি রাজশাহীর দিকে অগ্রসর হতে পারে। তখন এর গতি থাকতে পারে ঘণ্টায় ১শ থেকে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত। এরমধ্যে উপকূলের সাইক্লোন সেন্টারগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন অনেকে। তাদের খাওয়াদাওয়ার ব্যবস্থাসহ সর্বিক প্রস্তিতি আগেই নিয়ে রেখেছিল প্রশাসন।

তবে এরইমধ্যে ফণির প্রভাবে ঝড়ো হাওয়ায় গাছের ডাল ভেঙে ও বজ্রপাতে বাগেরহাট-কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোণায় ৯ জন নিহত হয়েছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় ফণি’র প্রভাবে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি ও ঝড়ো হাওয়া বইছে। আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বাংলাদেশ উপকূল হয়ে ঘূর্ণিঝড়টি দক্ষিণ-পশ্চিম ও উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলার ওপর দিয়ে রাতভর বয়ে যাবে। হবে জলোচ্ছাস। উত্তাল রয়েছে সাগর।

বৈরি আবহাওয়ায় নদী পথে সব ধরণের নৌ যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। উপূকলীয় এলাকা থেকে আশ্রয়কেন্দ্রে সরিয়ে নেয়া হয়েছে বেশিরভাগ মানুষকে। ফণি’র কারণে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর সংকেত দেখাতে বলা হচ্ছে।

একই সতর্কতা জারি রয়েছে ভোলঅ, বরগুনা, পটুয়াখালী, বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা এবং এসব জেলা সংলগ্ন চরাঞ্চলে। চট্টগ্রাম বন্দরে এখনও ৬ নম্বর বিপদ সংকেত বিরাজ করছে। এই সতর্কতা দেখাতে বলা হয়েছে, নোয়াখালী, লক্স্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর ওবং আশপাশের চরগুলোতে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply