২ হাজার টাকার বিনিময়ে ‘প্রেমিকা’ ও তার বোনকে বন্ধুদের হাতে তুলে দেয় রতন

|

অর্থের বিনিময়ে প্রেমিকা ও তার বোনকে ধর্ষণের জন্য বন্ধুদের হাতে তুলে দিয়েছিল রংপুরের আদিবাসি পল্লীর রতন মিঞ্জি। আর এই প্রতারণা সহ্য করতে না পেরেই আত্মহত্যা করেন স্বপ্না।

গ্রেফতার দুই আসামিকে র‍্যাব ও পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

রাজধানী থেকে গ্রেফতারের পর গত রাতেই মূল আসামি রতন মিঞ্জিকে নেয়া হয় রংপুরে র‍্যাবের কার্যালয়ে। আজ শুক্রবার সকালে সংবাদ সম্মেলনে ছায়া তদন্তের আদ্যোপান্ত তুলে ধরেন র‍্যাব-১৩ এর অধিনায়ক মোজ্জাম্মেল হক।

তিনি জানান, অপমান সইতে না পেরেই আত্মহত্যা করে স্বপ্না টপ্পা। ঘটনা ধামাচাপা দিতে ভুক্তভোগীদের হত্যার হুমকিও দেয় আসামিরা।

এদিকে আরেক আসামি মামুনকে গ্রেফতার করা হয় রংপুরের পীরগঞ্জ থেকে। জেলা পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান জানান, ক্ষুদৃ নৃ-গোষ্ঠির দুই তরুণীকে নির্যাতনের ঘটনার মূল অভিযুক্ত এই মামুন। মাত্র দুই হাজার টাকার বিনিময়ে প্রেমিকা ও তার বোনকে মামুন ও আরেক আসামি হযরতের হাতে তুলে দেয় রতন মিঞ্জি।

ভোক্তভোগীর স্বজনদের অভিযোগ, গত শুক্রবার রংপুরের মাহিগঞ্জে রতন ও তার সহযোগীরা ধর্ষণ করে স্বপ্না টপ্পা ও তার চাচাতো বোনকে। ওই রাতেই আত্মহত্যা করেন স্বপ্না। পরে মোবাইল ফোনের এসএমএস ও চাচাতো বোনের কাছ থেকে বিষয়টি জানতে পারে স্বজনরা। এ ঘটনায় মিঠাপুকুর থানায় মামলা হয়।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply