ইমরুল কেন বিশ্বকাপ দলে নেই?

|

বিশ্বকাপের গত দুই আসরে খেলেছেন ইমরুল কায়েস। সবশেষ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দলেও ছিলেন তিনি। কিন্তু অভিজ্ঞ এই ওপেনারকে বাদ রেখেই মঙ্গলবার বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপে খেলা ইমরুলকে বাদ দিয়ে রাখা হয়েছে লিটন দাস ও সৌম্য সরকারকে।

মঙ্গলবার মিরপুরে সাংবাদিক সম্মেলনে বিশ্বকাপ দল গঠন নিয়ে জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেন, ‘যেহেতু ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ হচ্ছে, তাই আমরা অভিজ্ঞতাটাকে একটু বেশি মুল্যায়ন করেছি। এখানের কন্ডিশনটাও আমাদের এখানকার থেকে আলাদা। এক বছর আগে আমরা সেখানে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলে এসেছিলাম। তো সেই অভিজ্ঞতার কথা বিবেচনা করে আমাদের স্কোয়াড সাজানো হয়েছে।’

দল নির্বাচনে অভিজ্ঞার যদি সত্যিই মূল্যায়ন হয়ে থাকে তাহলে কেন বাদ পড়লেন ইমরুল! ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপ এমনকি ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও ছিলেন ইমরুল। প্রায় একযুগ ধরে জাতীয় দলে খেলে যাওয়া এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটারকে বাদ দিয়ে রাখা হয়েছে মাত্র ২৭ ও ৪১টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলা লিটন-সৌম্যকে।

বিশ্বকাপ দলে ইমরুল কেন নেই? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচক বলেন, ‘যেহেতু ওপেনিংয়ে তামিমের জায়গা পাকা। তাই তার সঙ্গী হিসেবে একজন ডানহাতিকেই নিতে চায় টিম ম্যানেজমেন্ট।’

জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু আরও বলেন, ‘আমাদের ২০ জনের যে পুল আছে সেটার মধ্যে সে আছে। টিম ম্যানেজমেন্ট টপ অর্ডারে ডানহাতি এবং বামহাতি ব্যাটসম্যানের একটা কম্বিনেশন চাচ্ছিলেন। সেই বিবেচনা করেই ওকে (ইমরুলকে) অফ করে রাখা হয়েছে।’

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল

মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, লিটন কুমার দাস, সাকিব আল হাসান (সহ-অধিনায়ক), মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, রুবেল হোসেন ও আবু জায়েদ রাহী।









Leave a reply