নিখোঁজের ৯ ঘণ্টা পর পদ্মা থেকে কলেজ ছাত্রের লাশ উদ্ধার

|

প্রদ্যুৎ কুমার সরকার, মাদারীপুর
মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ফেরি ঘাটের পল্টুন থেকে পদ্মায় পরে নিখোঁজ কলেজ ছাত্রের লাশ ৯ ঘণ্টা পর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত কলেজ ছাত্র ঢাকা মতিজিল আইডিয়াল স্কুল এ্যান্ড কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিল বলে তার বাবা নিশ্চিত করেছেন।

নিহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, মাদারীপুর সদর উপজেলার আদিত্যপুর গ্রামের ইলেকট্রিক ব্যবসায়ী মিজান বেপারী পরিবারসহ ঢাকার সায়দাবাদ দয়াগঞ্জ এলাকায় বসবাস করেন। মিজান বেপারীর ছেলে মতিজিল আইডিয়াল স্কুল এ্যান্ড কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মেহেদী হাসান রকি (২২) কয়েকদিন আগে ঢাকা থেকে বরিশালের বুড়ির হাট এলাকায় খালা বাড়ি বেড়াতে আসে। বুধবার খালাতো ভাই আরিফকে সাথে নিয়ে বাসে চড়ে ঢাকা ফিরছিল মেহেদী। রাত আনুমানিক ১ টার দিক মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটের ৩নং ফেরি ঘাটে তাদের গাড়ি ফেরিতে উঠছিল । এ সময় মেহেদী তাড়াহুড়া করে বাসে চড়তে গিয়ে পা ফসকে পল্টুন থেকে ফেরি ও পল্টুনের মাঝের ফাকা দিয়ে পদ্মায় পড়ে নিখোঁজ হয়ে যায়। রাতে ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ সদস্যরা দীর্ঘ সময় চেষ্টা করে তাকে উদ্ধারে ব্যর্থ হয়। পরে খবর পেয়ে সকালে ঢাকা সিদ্দিক বাজার ফায়ার সার্ভিসের একটি ডুবুরি দল এসে সকাল ১০ টার দিক পদ্মা নদীর কাঁঠালবাড়ি ঘাট এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে পরিবারের নিকট হস্তাস্তর করেছে।
নিহতের বাবা মিজান বেপারী বলেন, আমার একমাত্র ছেলে মতিজিল আইডিয়াল স্কুল এ্যান্ড কলেজ থেকে এ বছর এইচএসসি পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শারিরিক অসুস্থার কারণে এ বছর পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করতে পারেনি। খালা বাড়ি থেকে ঢাকা ফেরার পথে ফেরি ঘাটে পদ্মায় পড়ে যায়। ওকে নিয়ে আমার অনেক স্বপ্ন ছিল।
ঢাকা সিদ্দিক বাজার ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার শরীফ বলেন, আমরা খবর পেয়ে সকালে এসে কাঠালবাড়ি ঘাট এলাকার পদ্মা নদী থেকে নিখোঁজের লাশ উদ্ধার করেছি। স্থানীয় প্রশাসনের আইনি প্রক্রিয়া শেষে লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply