হামলার আগের দিন ইর্মাজেন্সি গেটের নতুন লক সিস্টেম, প্রাণ যায় ১৭ জনের

|

A view of the Al Noor Mosque on Deans Avenue in Christchurch, New Zealand, taken in 2014. REUTERS/SNPA/Martin Hunter ATTENTION EDITORS - NO RESALES. NO ARCHIVES

নিউজিল্যান্ডের ‘আল-নূর’ মসজিদে হামলার সময়, জরুরি বর্হিগমন দরজা খুলছিলো না। বার্তা সংস্থা- এপি’র অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বেরিয়ে এসেছে এ ভীতিকর তথ্য।

প্রাণে বেঁচে ফেরা মুসল্লিরা জানান, শ্বেতাঙ্গ চরমপন্থি যখন এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়ছিলো; সেসময় ইর্মাজেন্সি গেটের কাছে জমা হন অনেকে। কিন্তু, সেটা খুলতে না পেরে ঐ দরজার কাছেই গুলিবিদ্ধ হয়ে, প্রাণ হারান ১৭ জন। নিউজিল্যান্ড গোয়েন্দা বিভাগের তদন্তেও বেরিয়ে এসেছে, হামলার ঠিক আগের দিন দরজাটিতে নতুন ‘ইলেকট্রিক লকিং সিস্টেম’ লাগানো হয়। যা, কর্তৃপক্ষ ছাড়া অন্যান্য মুসল্লির পক্ষে খোলা অসম্ভব ছিলো।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রধান ফটকের মতো সেদিন এ দরজাটি খোলা থাকলে, প্রাণে বাঁচতেন অনেকে। ১৫ মার্চ, জুমার দিন ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদে একাই হামলা চালান শ্বেতাঙ্গ সন্ত্রাসী। নিহত ৫০ জনের মধ্যে, ৪২ জনই প্রাণ হারান ‘আল-নূর’ মসজিদে।

টিবিজেড/


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply