অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনে ব্যাপক পরিবর্তন আনছে নিউজিল্যান্ড

|

নিউজিল্যান্ডের অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী জেসিন্দা আরদার্ন। স্থানীয় সময় শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

এসময় তিনি ক্রাইস্টচার্চে হামলাকারীর পরিচয় প্রকাশ করেন। হামলাকারী ব্রেনটন টেরেন্ট (২৮) অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক। তিনি দুবছর ধরে নিউজিল্যান্ডের ডানিডিনে বসবাস করছেন।

নিউজিল্যান্ড প্রধানমন্ত্রী জানান, হামলার সময় হামলাকারীর কাছে বৈধ অস্ত্র ছিল। এ কারণে হামলায় ব্যবহৃত গুলি কিনতে তাকে কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি।

হামলাকারীর কাছে একটি এ ক্যাটাগরির লাইসেন্স ও পাঁচটি বন্দুক দেখা গেছে। লাইসেন্সটি তিনি গত নভেম্বর মাসে পেয়েছেন। হামলায় পাঁচটি বন্দুক ব্যবহার করা হয়েছে যার দুটি আধা-স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র, দুটি শটগান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এর আগে ২০০৫,২০১২,২০১৭ সালে আমরা অস্ত্র আইনে পরিবর্তন আনার উদ্যোগ নিয়েছি। এখনই সময় তা পরিবর্তন করা।

এ ঘটনার পর নিউজিল্যান্ডের অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইনে ব্যাপক পরিবর্তন আনতে চান জাসিন্দা আরদার্ন।

প্রসঙ্গত শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীদের এলোপাতাড়ি গুলিতে তিনজন বাংলাদেশিসহ ৪৯ জন নিহত হয়েছেন।

এছাড়া গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আছেন অন্তত ৪৮ জন।

এর আগে ১৯৯২ সালে অস্ত্র আইনে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়। এ বছর এক গোলাগুলিদে ১৩ জন নিহত হয়।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply