শপথ নিলেও ৩১ মার্চের মধ্যে পুনরায় নির্বাচন চান নুর

|

ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর জানিয়েছেন, বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের প্যানেল থেকে নির্বাচিত তিনি এবং সমাজসেবা সম্পাদক আখতার হোসেন শপথ নেবেন। আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যমুনা টেলিভিশনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ কথা জানান।

তবে এই ছাত্রনেতা আরও জানিয়েছেন, তিনি ডাকসুর পুনঃনির্বাচন চান। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী আগামী ৩১ মার্চের মধ্যে পুনঃনির্বাচন অনুষ্ঠানের বাধ্যবাদকতা রয়েছে। নিরপেক্ষ শিক্ষকদের মাধ্যমে নির্বাচন পরিচালনা কমিটি করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।

গতকাল অনুষ্ঠিত নির্বাচন আয়োজনে যারা জড়িত ছিলেন তাদের পদত্যাগও দাবি করে নুর বলেন, আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী ৩১ মার্চের মধ্যে আবার নির্বাচন দিতে হবে। তার আগে এই নির্বাচনের সাথে যারা আছে তাদের পদত্যাগ করতে হবে।

তিনি বলেন, পুনঃনির্বাচন হলে সবগুলো পদেই হতে হবে। আমরা বিশ্বাস করি ফেয়ার নির্বাচন হলে আমরা পূর্ণ প্যানেলেই জিতবো।

নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করা অন্যান্য সংগঠন এ বিষয়ে যা সিদ্ধান্ত নেবে তাতে পূর্ণ সমর্থন থাকবে বলেও জানান ডাকসু ভিপি।

আজ গতকাল ছাত্রলীগের হামলা এবং পরে সভাপতি রেজওয়ানুল হক শোভন কর্তৃক সাক্ষাৎ করে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানানোর বিষয়ে নুর বলেন, ছাত্রলীগ প্রয়োজনে কাছে টানে প্রয়োজন পুরিয়ে গেলে ছুড়ে ফেলে।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে নুর ঢাবি ক্যাম্পাসে গেলে টিএসসি এলাকায় তাকে ধাওয়া করে ছাত্রলীগ। নুরকে রক্ষ করতে গিয়ে হামলায় আহত হন ছাত্রদলের প্যানেল থেকে সমাজসেবা সম্পাদক প্রার্থী তৌহিদুর রহমান। এরপর নুর ও তার সঙ্গীরা টিএসসির ভেতরে অবস্থান নিলে বিকালে সেখানে গিয়ে তার সাথে সাক্ষাৎ করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি ও ভিপি পদে পরাজিত প্রার্থী রেজওয়ানুল হক শোভন।

টিএসসিতে পৌঁছেই নুরুকে জড়িয়ে ধরেন শোভন। এসময় নুরু বলেন, তিনি স্বাগত জানাতে এসেছেন। অভিনন্দন জানিয়েছেন। আমিও তাকে স্বাগত জানিয়েছি। ছাত্রলীগ সভাপতি বলেছেন তারা আমাদের সাথে একসাথে কাজ করতে চান। আমরাও একসাথে কাজ করতে আগ্রহী।

নুরু আরও বলেন, আমরা চেয়েছিলাম একটা দৃষ্টান্তমূলক নির্বাচন হোক। কিন্তু বিভিন্ন অনিয়ম কারচুপির কারণে আমাদের সেই আশা পূরণ হয়নি।

এছাড়া আজ ও গতকাল শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে আগামীকাল ঘোষিত ক্লাস বর্জন কর্মসূচি থেকে সরে আসার ঘোষণা দিয়েছেন নবনির্বাচিত ভিপি নুরু। তিনি বলেন, হামলার বিষয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি সাংগঠনিক এবং বিশ্ববিদ্যাল কর্তৃপক্ষ কী ব্যবস্থা নেয় সেটা আমরা দেখবো।

ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন বলেন, আমরা নুরুকে সার্বিক সহায়তা করবো। এবং ক্যাম্পাসে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে সচেষ্ট থাকবো।

গতকাল সোমবার ব্যাপক অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগের মধ্যে ভোটগ্রহণ শেষে রাতে ভোট গণনায় নুরুল হক নুর ভিপি ও ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী জিএস হিসেবে নির্বাচিত হন।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply