পটুয়াখালীতে অভিযানে গিয়ে ইউএনও’সহ আহত-৫

|

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

পটুয়াখালীর তেতুলিয়া নদীতে জাটকা নিধনের বিরুদ্ধে অভিযানের সময় জেলেদের হামলায় বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও)সহ অন্তত ৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অভিযানে অংশ নেয়া কালাইয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা এক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। সোমবার সন্ধ্যায় তেতুলিয়া নদীর খানকা পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিজুষ চন্দ্র দে এবং তার অফিস স্টাফ ভূমি অফিসের জারী কারক আশরাফ ও অফিস সহায়ক আব্দুলের নাম জানা গেছে। বাকীদের নাম জানা যায়নি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তেতুলিয়া নদীর অভয় আশ্রমে নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে স্থানীয় জেলেরা রাতের আধারে অবৈধ কারেন্ট জাল দিয়ে জাটকা মাছ সংগ্রহ করে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নেতত্বে ১১জন সদস্য সন্ধ্যায় অভিযান শুরু করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে অভিযান টের পেয়ে কয়েকটি নৌকায় কারেন্ট জাল রেখে জেলেরা পালিয়ে যায়।

এ সময় বেশ কিছু পরিমাণ কারেন্ট জাল নিয়ে তীরে আসার পথে প্রায় ২০ থেকে ২৫ জনের একদল জেলে সংঘবদ্ধভাবে অতর্কিত হামলা চালায়। বৃষ্টির মত ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে ইউএনও’র সাথে থাকা পুলিশ সদস্যরা এক রাউন্ড ফাকা গুলি ছুড়ে।

বাউফল থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এখনও মামলা হয়নি, মামলা হলে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাউফল উপজেলা নির্বাহী অফিসার পিজুষ চন্দ্র দে জানান, সরকারের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও জেলেরা নিয়মিত জাটকা নিধন করে আসছিল। আমাদের উপস্থিতি টের পেরে সরে গিয়ে, পরে আবার দলগত ভাবে হামলা চালায়। তবে এরকমের কোন হামলায় আমরা অভিযান বন্ধ করবো না। দায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হবে।









Leave a reply