টঙ্গীতে ডাকাতের কবলে ডিআরইউ সম্পাদক

|

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গীতে ডাকাতদলের কবলে পড়ে সর্বস্ব খুইয়েছন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) এর সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান। সশস্ত্র ডাকাতদল জ্যামে আটকা পড়া কবির আহমেদের ব্যক্তিগত গাড়ির গ্লাস ভেঙ্গে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, আইফোন, গুরুত্বপূর্ণ কাগজপত্রসহ সর্বস্ব লুটে নিয়েছে।

এসময় গাড়িতে তার স্ত্রী ও দুই সন্তানও সাথে ছিলেন। ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে কবির আহমেদ আহত হয়েছেন। এঘটনায় তিনি তাৎক্ষনিকভাবে টঙ্গী পশ্চিম থানার সহযোগিতা চেয়ে ফোন করে পুলিশের সহযোগিতা পাননি বলে অভিযোগ করেছেন।

কবির আহমেদ জানান, বৃহস্পতিবার রাতে স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে প্রাইভেটকারে তিনি গ্রামের বাড়ি ত্রিশালে যাচ্ছিলেন। রাত ১টায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের টঙ্গীর গাজীপুরা বাঁশ পট্টির কাছে পৌছলে ৫-৬ জনের একটি ডাকাতদল রাম দা ও চাপাতি দিয়ে প্রথমেই তার গাড়ির ড্রাইভিং ছিটের পাশের জানালার গ্লাস ভেঙ্গে ফেলে। এসময় ডাকাতরা ফিল্মি কায়দায় তার দুই শিশু সন্তানের গলায় দাঁড়ালো অস্ত্র ঠেকিয়ে তাদেরকে সব কিছু দিয়ে দিতে বলে। এসময় তার স্ত্রী সন্তানদের প্রাণ রক্ষায় একে একে তারা সব স্বর্ণালঙ্কার খুলে দিতে বাধ্য হন। এভাবে ডাকাতরা স্বর্ণের ৩টি রিং ও এক জোড়া চুড়ি নেওয়ার পর ভ্যানেটি ব্যাগ ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ সব কিছু লুটে নেয়। এসময় ঘটনাস্থলের বিপরীত পাশে চেকপোস্টের পুলিশ নির্লিপ্ত ভূমিকায় ছিল বলে তিনি অভিযোগ করেন। ঘটনাটি সাথে সাথে জিএমপির টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসিকে জানানোর পরও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলে কবির আহমেদ খান অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি ইমদাদুল হক বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল কিন্তু মহাসড়কে জ্যামের কারণে পুলিশ যথা সময়ে পৌঁছাতে পারেনি। তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় কবির আহাম্মেদ খান বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা ৫/৬জনকে আসামি করে থানায় মামলা দিয়েছেন।









Leave a reply