প্রিয় পাকিস্তান.. অভিনন্দনকে ফেরত দাও, আমাদের সংবাদ উপস্থাপকদের নিয়ে যাও

|

‘প্রিয় পাকিস্তান… উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে আমাদের কাছে ফেরত দাও। এর বদলে আমাদের সংবাদ উপস্থাপকদের নিয়ে যাও। এদের সবাইকে নিয়ে যাও। তোমাদের কাছেই রেখে দাও। এর পর এদের সঙ্গে যা করার কর। আর এদের কখনই আমাদের কাছে ফেরত পাঠিও না, কখনও না। দয়া কর, সদয় হও!’

বুধবার পাকিস্তানে বিমান হামলা চালাতে গিয়ে ভারতের বৈমানিক উইং কমান্ডার অভিনন্দন আটক হওয়ার পর তার মুক্তি চাইতে গিয়ে এ বিরক্তি প্রকাশ করেন মুম্বাইয়ের লেখক ও সংবাদ-বিশ্লেষক বৈভব বিশাল। নিজের ভেরিফায়েড টুইটার অ্যাকাউন্টে তিনি এ বিরক্তি তুলে ধরেন।

তার এ টুইটার পোস্টটি রিটুইট হয়েছে সাড়ে ৭ হাজারেরও বেশি বার। এতে লাভ রিঅ্যাক্ট পড়েছে ২৪ হাজার। আর মন্তব্য পড়েছে তিন হাজারেরও বেশি।

এ ছাড়া লেখক ও সংবাদ-বিশ্লেষক বৈভব বিশালের টুইটে পাকিস্তানের সংবাদ উপস্থাপক জাবেরিয়া সিদ্দিক মন্তব্য করেন, ‘আমরা ওদের চাই না। কারণ তারা জেনোফোবিয়ায় (বিদেশ-বিদ্বেষ) ভুগছে।’

পাকিস্তানের সেরাজ আহমেদ নামে আরেকজন তার দেশেও এমন ‘অতি-উৎসাহী’ উপস্থাপক থাকার কথা উল্লেখ করেন। তিনি তার মন্তব্যে বলেন, ‘দুই’দেশের জন্যই ব্যাপারটি সহজ হয়ে যাক। এদের সবাইকে ভারত মহাসাগরে নিক্ষেপ করা হোক… কী বলেন?’

ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। যে কোনো মুহূর্তেই পাল্টাপাল্টি হামলা শুরু হতে পারে- এমন টানটান উত্তেজনা সীমান্তজুড়েই। এতে উত্তেজনার দমকা হাওয়া বইছে দুই দেশের মিডিয়াপাড়ায়ও।

প্রসঙ্গত গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামায় দেশটির আধাসামরিক বাহিনীর গাড়িবহরে হামলায় অন্তত ৪৪ সেনা নিহত হন। এই আত্মঘাতী হামলার দায় স্বীকার করেছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদ। ভারত এ হামলার পেছনে পাকিস্তানের মদদ রয়েছে বলে দাবি করে আসছে।

এই হামলার জেরে গত মঙ্গলবার কাশ্মীরের নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাকিস্তানের বালাকোটে বিমান হামলা চালায় ভারতীয় বাহিনী। হামলায় ২০০ থেকে ৩০০ জঙ্গি নিহত হন বলে দাবি করেছে দেশটি।

এখানেই থেমে নেই, গত বুধবার পাকিস্তান সীমান্তে ভারতীয় দুই যুদ্ধবিমানকে ভূপাতিত করেন পাকিস্তান সেনারা। এর পর পাকিস্তান এক পাইলটকে আটকের দাবি করে। পরে একটি ভিডিও ছাড়ে। এর পর ভারত দাবি করে তাদের একটি যুদ্ধবিমানসহ এক পাইলট নিখোঁজ রয়েছে।









Leave a reply