ফেসবুক লাইভের কল্যাণে মহাসড়ক থেকে সরল মরণঘাতি বৈদ্যুতিক খুঁটি

|

সময়টা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের। এ মাধ্যমের কল্যাণে যেমন হচ্ছে অনেক প্রতারণা তেমনই সামাজিক সব উপকারে আসছে এই মাধ্যমটি।

বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের সুবাদে বহু অন্যায়কে রুখে দেয়া যাচ্ছে, অপরাধী সনাক্ত করে বিচারে সহযোগিতা করছে এই ফেসবুক।

বিভিন্ন সামাজিক সচেতনতামূলক কার্যক্রম হচ্ছে ফেসবুকের মাধ্যমে।

তেমনি ফেসবুকে সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন নামের এক আইনজীবীর একটি লাইভ ভিডিওর সুবাদে এবার নড়েচড়ে বসলো নরসিংদী পল্লীবিদ্যুত কর্তৃপক্ষ।

যে কাজ স্থানীয়দের গত তিন বছরের অনুরোধেও হয়নি তা ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হকের লাইভ ভিডিওর পর ১২ ঘন্টার মধ্যেই হয়ে গেল।

নরসিংদীর শিবপুর থানার কালারচর নামক জায়াগার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ঠায় দাঁড়িয়ে ছিল পল্লীবিদ্যুতের একটি খুঁটি।

ব্যস্ততম এই মহাসড়কে রাতের আঁধারে আর কুয়াশায় দ্রুতগামী গাড়িচালকেরা এই খুঁটিটি দেখতে পেতেন না।

ফলে গত কয়েকবছরে এখানে ঘটেছে অনেক দুর্ঘটনা। এসব দুর্ঘটনায় নিহত হবার খবরও পাওয়া গেছে। তবুও রাস্তার ওপর বসানো এই খুঁটিটি কোন খুঁটির জোরে সরছিল না তা বোধগ্ম্য ছিল না স্থানীয়দের।

স্থানীয়দের তিন বছরের অনুরোধেও যে কর্তৃপক্ষের টনক নড়েনি তাই ওই ভাইরাল ভিডিও কারণে হয়ে গেল।

শনিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে খুঁটিটির কাছে দাঁড়িয়ে এটি সরানো দাবি জানিয়ে নিয়ে একটি সচেতনতামূলক ভিডিও পোস্ট করেন আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। ভিডিওটি এক রাতেই ভাইরাল হয়ে পড়ে। এটি ইতিমধ্যে দেখা হয়েছে ১৭ লাখ বারের বেশি।

এরপর রোববার দুপুরে ওই খুঁটিটি সরিয়ে নিয়ে মহাসড়ক থেকে ৫ ফুট দূরে স্থানান্তর করে পল্লীবিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি জেনে রোববার বিকেল সাড়ে ৫ টায় পর আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন সড়ক থেকে খুঁটিটি সরিয়ে ফেলার ভিডিও তার ফেসবুক পেজে আপলোড করেন।

আইনজীবী সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনের সামাজিজ সচেতনতামূলক ফেসবুক লাইভ ইতিমধ্যে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।









Leave a reply