সংবিধান সংশোধন করে ২০৩৪ সাল পর্যন্ত ক্ষমতায় থাকার বন্দোবস্ত স্বৈরশাসক সিসির

|

মিশরের প্রেসিডেন্ট জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আস-সিসিকে আরো ১২ বছর ক্ষমতায় রাখার জন্য দেশের সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাব করেছেন তার অনুগত সংসদ সদস্যরা। এবং সেই প্রস্তাব সংশ্লিষ্ট সংসদীয় কমিটিতে পাস হয়েছে।

সংবিধান সংশোধনের প্রস্তাবটি চূড়ান্তভাবে পাস হতে সামনে আরও কিছু ধাপ রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, সংসদে সিসি অনুগতরা সংখ্যাগরিষ্ঠ হওয়ায় এসব ধাপ পার হয়ে চূড়ান্তভাবে পাস হবে।

এর ফলে জেনারেল সিসি ক্ষমতায় বর্তমান দ্বিতীয় মেয়াদ শেষ করার পরও ২০৩৪ সাল পর্যন্ত তিনি মিশরের প্রেসিডেন্ট থাকবেন। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয় মেয়াদ শেষ হবে ২০২২ সালে।

মিশরের বর্তমান সংবিধান অনুযায়ী, প্রেসিডেন্ট দুই মেয়াদের বেশি দায়িত্ব নিতে পারবেন না। এটি সংশোধন করা হবে। এছাড়া বর্তমানে প্রেসিডেন্টের মেয়াদ চার বছর থাকলেও সংশোধনে ৬ বছর প্রস্তাব করা হয়েছে। ২০২২ সাল থেকে দুই মেয়াদে আরও ১২ বছর ক্ষমতায় থাকতে পারবেন এই স্বৈরশাসক।

২০১৩ সালে সামরিক ক্যু’র মাধ্যমে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ড. মুহাম্মাদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর জেনারেল সিসি ২০১৪ সালে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসেন।

সাম্প্রতিক মাসগুলোতে জল্পনা-কল্পনা চলছিল যে, জেনারেল সিসির সমর্থকরা তাকে ক্ষমতায় রাখার জন সংবিধান পরিবর্তন করতে পারেন। সেই ব্যবস্থা বাস্তবে রূপ দিতে রোববার সংসদে সংবিধান সংশোধনের খসড়া প্রস্তাব তোলা হয়। মঙ্গলবার সংসদীয় কমিটিতে পাস হওয়া প্রস্তাবটি চুড়ান্ত হলে গণভোটের আয়োজন করা হবে।

বিশ্লেষকদের অনেকেই মনে করেন, সংবিধান সংশোধনের জন্য যে গণভোটের আয়োজন করা হবে তা নিতান্তই লোকদেখানো বিষয় হবে।









Leave a reply