৩ ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর মুক্ত সাতক্ষীরা জেলা আ’লীগের সভাপতি-সম্পাদক

|

আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থী বাছাইয়ে তৃণমূলের ভোটাভোটিতে অস্বীকৃতি জানানোর কারণে তালায় তিন ঘণ্টা অবরুদ্ধ ছিলেন সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুনসুর আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম। আজ শনিবার দুপুরে তালা শিল্পকলা একাডেমি চত্বরে এঘটনা ঘটে। দুপুর ১টা থেকে বিকাল ৪টা ১৫ মিনিট পর্যন্ত তাদেরকে অবরুদ্ধ করেন তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

স্থানীয় সূত্র জানায়, নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত মার্চে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শনিবার তালা শিল্পকলা একাডেমীতে বিশেষ বর্ধিতসভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা সভাপতি শেখ নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন জেলা সভাপতি মোঃ মুনসুর আহমেদ। বিশেষ অতিথি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং জেলা সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম।

সভার এক পর্যায়ে উপস্থিত কাউন্সিলররা ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাইয়ের পক্ষে মত দেন। কিন্তু জেলা সভাপতি ভোট দিতে অস্বীকৃতি জানালে তুমুল বাকবিতণ্ডার মধ্যে হঠাৎ জেলা সভাপতি সভা মুলতবি করা হলো বলে চলে যেতে উদ্যত হন। এসময় উপস্থিত কাউন্সিলররা ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাইয়ের দাবিতে অনুষ্ঠানস্থান সংলগ্ন রাস্তায় তাদেরকে অবরুদ্ধ করে বিক্ষোভ করতে থাকেন।

গাড়ীর গ্লাস বন্ধ থাকায় সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যে নেওয়া যায়নি।
তালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেহেদী হাসান রাসেল কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন এ এস আই বলেন- এটা আওয়ামী লীগের নিজস্ব ব্যাপার।

চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষ সনৎ কুমার দৃঢ়তার সাথে ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাইয়ের পক্ষে জোর দাবি রাখেন। খেশরা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড সভাপতি ও কাউন্সিলর শেখ আঃ হান্নান অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগের একজন শীর্ষ নেতা মোটা অংকের উৎকোচের বিনিময়ে ভোটপ্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রার্থী বাছাইয়ে অস্বীকৃতি জানাচ্ছেন।

এদিকে দীর্ঘ ৩ ঘণ্টা অবরুদ্ধ থাকার পর হ্যান্ডমাইকে আগামীকাল সকাল ১১টায় ভোটের মাধ্যমে প্রার্থী বাছাই হবে এমন সিদ্ধান্ত জানান সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম। এ ঘোষণার পর অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষুদ্ধ নেতাকর্মীরা।









Leave a reply