ভারতে উইকেট ফিক্সিং কেলেঙ্কারি

|

ক্রিকেটে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিতে পারে উইকেট। তাই তো সবসময় আগ্রহের কেন্দ্রে থাকে, কেমন হবে উইকেটের আচরণ। বাউন্সি-নাকি স্পিনিং হবে ২২ গজের আচরণ, তার উপর নির্ভর করে গড়া হয় একাদশ। তাই তো বাজিকরদের লোলুপ দৃষ্টি থাকে সেই উইকেটেই; আগে থেকে উইকেটের চরিত্র জানা গেলে কোটি কোটি টাকা।

আর যদি দলটা হয় ভারত তাহলে কথাই নেই। পুনেতে, ভারত-নিউজিল্যান্ডের দ্বিতীয় ওয়ানডের আগে সেই উইকেট নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে দেশটির একটি টেলিভিশন।

যেখানে স্টিং অপারেশন হাতেনাতে ধরা পড়েছেন মহারাষ্ট্র ক্রিকেট এসোসিয়েশনের কিউরেটর। বাজিকরের ইচ্ছামত উইকেট তৈরি করতে রাজি হন পুনের কিউরেটর পান্দুরাঙ্গ সালগাওনকার। বাজিকরের বেশে সেই রিপোর্টার তাকে জানান, দুজন ক্রিকেটার বাউন্সি উইকেট চেয়েছেন, বানানো সম্ভব কিনা? কিউরেটর পান্দুরাঙ্গ সালগাওনকার রাজি হন, কথামত উইকেট তৈরিতে।

উইকেটে বিক্রি করে, পান্দুরাঙ্গ আরো জানান, উইকেট ব্যাটসম্যানদের সহায়ক হবে এবং ৩৩৭-৩৪০ রান উঠতে পারে, যা তাড়া করে জেতাও সম্ভব।

কথা মতো উইকেট তৈরি করতে, ছদ্মবেশী সেই রিপোর্টারকে পিচের কাছে নিয়ে যান তিনি। আইসিসির আইনে বাইরের কারো সেখানে যাওয়া নিষিদ্ধ। কিউরেটরের এমন কেলেঙ্কারির খবর প্রকাশ হলেও, তাতে বাধা পড়েনি ভারত-নিউজিল্যান্ড দ্বিতীয় ওয়ানডে ম্যাচে। ম্যাচ শুরুর আগে আইসিসির কর্মকর্তারা পিচ পরিদর্শন করে জানিয়েছেন, খেলা শুরু হতে কোনো বাধা নেই।

৪ বছর আগে আইপিএলে ম্যাচ ফিক্সিং নাড়িয়ে দিয়েছিলো ভারতের ক্রিকেটেকে। এবার সেখানে যোগ হলো উইকেট ফিক্সিং। এর মধ্যে কেলেঙ্কারির জের ধরে সেই কিউরেটরকে বহিষ্কার করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। আধিকতর তদন্তের ঘোষণাও দিয়েছে বিসিসিআই। হয়তো কেঁচো খুঁড়তে গিয়ে বের করে আনতে পারে ক্রিকেটের নতুন সাপ!









Leave a reply