এমএনপি সেবা: সবচেয়ে বেশি গ্রাহক হারিয়েছে গ্রামীণফোন, পেয়েছে রবি

|

এমএনপি সেবার ক্ষেত্রে খরচ কমলো ৬৩ শতাংশ। মোবাইল নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর বদলের সুযোগ, এমএনপি সেবায় সিম রিপ্লেসমেন্ট ট্যাক্স তুলে নেওয়া হয়েছে। আর এতে খরচ কমলো। এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে, রাজস্ব বোর্ড, এনবিআর।

সেবা পেতে একজন গ্রাহককে এমএনপির জন্য ৫০ টাকার সঙ্গে ১৫ শতাংশ ভ্যাটসহ মোট ৫৮ টাকা পরিশোধ করতে হয়। এর সঙ্গে সিম রিপ্লেসমেন্ট ট্যাক্সের জন্য আরও ১০০ টাকা গুনতে হতো। সবমিলিয়ে গ্রাহকের খরচ পড়ত ১৫৮ টাকা। অপারেটর বদলের ক্ষেত্রে সিমের ওপর থাকা ১০০ টাকা সম্পূরক শুল্ক প্রত্যাহার করেছে, এনবিআর।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, মোবাইল অপারেটর ও এমএনপি সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানকে মাসের প্রথম সপ্তাহে তথ্য বিটিআরসিকে জানাবে। গেল বছরের ১ অক্টোবর এ সেবা চালু করা হয়। এমএনপি সেবার মাধ্যমে এ পর্যন্ত এক লাখ ছয় হাজার গ্রাহক অপারেটর পরিবর্তন করেছেন। বাতিল হয়েছেন ৮৫ হাজার গ্রাহক। শুল্ক ছাড়ের ফলে, আরো বেশি সংখ্যক গ্রাহক এমএনপি সুবিধা নিবে বলে মনে করছে লাইসেন্স সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানটি।

বিটিআরসি’র তথ্যানুযায়ী, সবচেয়ে বেশি গ্রাহক হারিয়েছে গ্রামীণফোন। আর অপারেটর পরিবর্তন করে রবিতে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক এসেছেন।

ডিসেম্বর মাসের তথ্যানুযায়ী, গ্রামীণফোনে এসেছে মোট ১১শ’ ৫০ জন। রবিতে এসেছে ২৩ হাজার ৯৩৮ জন। বাংলা লিংকে ৩ হাজার ৮শ’ ৩ জন এবং রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান টেলিটক পেয়েছে ৩৬৭ জন। এই হিসাবে ডিসেম্বরে গ্রামীণফোন গ্রাহক হারিয়েছে ১৪ হাজার ৬১, রবি হারিয়েছে ৩ হাজার ২২৮, বাংলারিংক ১১ হাজার ২৯৯ এবং টেলিটক হারিয়েছে ৯৪০ জন। ডিসেম্বর মাসে এমএনপি সেবা নিয়েছে ২৯ হাজার ২৫৮ জন।

নভেম্বর মাসে গ্রামীণফোন পেয়েছিলো ১ হাজার ৮৯০ জন। রবি পেয়েছে ২২ হাজার ৭০ জন। বাংলালিংক ৮ হাজার ২৫৯ জন এবং টেলিটক গ্রাহক পেয়েছে ৫৫৪ জন গ্রাহক। নভেম্বরের হিসাবে গ্রামীণফোন গ্রাহক হারিয়েছে ১৬ হাজার ৫১৭ জন, রবি ৬ হাজার ৩০২ জন, বাংলালিংক ৯ হাজার ২৪২ জন, টেলিটক ৭১২ জন গ্রাহক।









Leave a reply