দীপাবলীর আরতিতে মুসলিম নারী, দেওবন্দের ফতোয়া

|

হিন্দু ধর্মালম্বীদের দীপাবলি উৎসবে গিয়ে এক মুসলিম নারীর আরতি পূজায় অংশ নেয়ার খবরে ফতোয়া জারি করেছে ভারতের ঐতিহ্যবাহী ইসলামী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান দারুল উলুম দেওবন্দ।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ফতোয়ায় বলা হয়- মুসলমান নারী-পুরুষের পক্ষে এক আল্লাহ ছাড়া অন্য কোনো উপাস্যের জন্য প্রার্থনা করার কোনো সুযোগ নেই।

‘যদি কেউ আল্লাহ ছাড়া অন্য কোনো উপাস্যের প্রার্থনা করে তাহলে সে মুসলমান থাকে না’, বলেছে দেওবন্দ। আজ শনিবার এই ফতোয়া জারি করা হয়।

গত বৃহস্পতিবার উপমহাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসব দীপাবলি উদযাপিত হয়েছে। এ দিন ভারতের উত্তর প্রদেশের বারানসিতে উৎসবে গিয়ে এক মুসলিম নারী আরতি পূজায় অংশ নিচ্ছেন- এমন একটি ছবি সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।

এরপরই উল্লিখিত ফতোয়া জারি করা হলেও দেওবন্দের বিবৃতিতে ওই ঘটনার কোনো উল্লেখ ছিলনা।

হিন্দু-মুসলিম পারস্পরিক সৌহার্দ্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে এবার বারানসিতে দীপাবলি উৎসব আয়োজন করে স্থানীয় সংগঠন ‘মুসলিম মহিলা ফাউন্ডেশন’। সংগঠনের নেত্রী নাজীন আনসারি বলেন, ‘শ্রীরাম হলেন আমাদের পূর্বপুরুষ। আমরা আমাদের নাম আর ধর্ম পরিবর্তন করে হিন্দু বা মুসলিম হতে পারি। কিন্তু নিজেদের পূর্বপুরুষকে কিভাবে বদলাবো? দেবতা শ্রীরামের নামে গান গাইলে শুধু হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যকার দূরত্বই ঘুচবে না, ইসলামের মহানুভবতাও প্রকাশ পাবে।’





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply