‘২৮ আসনে হামলায় ধানের শীষের ১৯ প্রার্থীসহ আহত শতাধিক, ২৭৩ টি মামলা’

|

সারাদেশের ২৮টি নির্বাচনী আসনে আওয়ামী লীগ ও পুলিশের হামলায় ধানের শীষের ১৯ প্রার্থীসহ শতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

আজ মঙ্গলবার সকালে নয়াপল্টনের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান তিনি।

রিজভী বলেন, গতকাল সোমবার ছিল সবচেয়ে ভায়োলেন্ট দিন। আওয়ামী সন্ত্রাসীদের টেক্কা দিয়ে পুলিশই এসব হামলায় অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করেছে।

বিএপনপির এ নেতা জানান, বিএনপির যুগ্মমহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকনের ওপর আবারও হামলা করা হয়েছে। ধানের শীষের প্রার্থী শহীদ উদ্দিন চৌধুরীর ওপর হামলা করেছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সিনিয়র নেতা মওদুদ আহমদের গাড়িতে ভয়ঙ্কর হামলা করা হয়েছে। অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পান তিনি। দলের আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খানের ওপর গতকালও সশস্ত্র হামলা করেছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা।

অন্যদিকে কিশোরগঞ্জে ধানের শীষর প্রার্থী মেজর (অব.) আক্তারুজ্জামান ও শরীফুল আলমের ওপর পুলিশ গুলি চালিয়েছে বলে জানান রিজভী।

তিনি আরও জানান, শরীয়তপুর-৩ আসনের বিএনপির প্রার্থী মিয়া নুরুদ্দিন আহমেদ অপুর প্রচারণায় সশস্ত্র হামলা চালিয়েছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। গুরুতর আহত ও মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় নিয়ে আসা হয়েছে চিকিৎসার জন্য। তার অবস্থা গুরুতর।

এছাড়া শেরপুরে ধানের শীষের প্রার্থী ডা. সানসিলা জেবরিন প্রিয়াংকার ওপর হামলা করা হয়েছে। হামলায় তিনি গুরুতর আহত হয়েছেন। বরিশালে সরদার সারফুদ্দিন আহমেদ সান্টু হামলায় আহত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

রিজভী বলেন, এছাড়াও গতকাল আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হয়েছেন ধানের শীষের প্রার্থী জয়নুল আবদিন ফারুক, ফজলুল আজিম, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, সেলিম রেজা হাবিব, আজহারুল ইসলাম মান্নান ও এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ

তিনি অভিযোগ করে বলেন, গত এক সপ্তাহ ধরে কক্সবাজার-১ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী হাসিনা আহমেদ অবরুদ্ধ হয়ে আছেন। সন্ত্রাসীরা গোটা এলাকা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। ‘গতকাল রাতে সপরিবারে মিজানুর রহমান সিনহা হামলার শিকার হয়েছেন। এছাড়াও হামলায় খাগড়াছড়িতে ব্রাশফায়ারে মারা গেছেন দুই ব্যক্তি।’

রিজভী বলেন, ভোলা-৩ আসনের বিএনপি প্রার্থী মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম মঙ্গলবার সকালে নির্বাচনী গণসংযোগে বের হলে আওয়ামী যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও মহিলা লীগের নেতাকর্মীরা তার ওপর হামলা করেছেন। তাকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) নেতৃত্বে পুলিশ, বিজিবি রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা কর্মী নামে আওয়ামী ক্যাডার বাহিনী মাঠে নেমেছে বলে অভিযোগ করেন বিএনপির এ নেতা।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী আরও জানান, তফসিল ঘোষণার পর এ পর্যন্ত ৭২১ জনকে গ্রেফতার এবং ২৭৩ টি মামলা দেয়া হয়েছে।









Leave a reply