খালেদা জিয়া নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না

|

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্টের তৃতীয় বেঞ্চ; এরফলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারছেন না তিনি।

এর আগে আজ সকালে খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা চেয়ে রিট আবেদনের শুনানিতে একক বেঞ্চের প্রতি অনাস্থা দিয়ে লিখিত আবেদন করে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। তবে আদালতের প্রতি অনাস্থার আবেদন খারিজ করে দেন তৃতীয় বিচারক জেবিএম হাসান। পরে রিট শুনানি শেষে খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিট খারিজ করে দেয় আদালত।

আদালতের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের সময় আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিচারপতি জেবিএম হাসানের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ মামলাটি মঙ্গলবার পর্যন্ত মুলতবির আদেশ দেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতকে জানান, এই আদালতের ওপর অনাস্থার আবেদনপত্রটি অ্যাফিডেভিট করা সম্ভব হয়নি। তাই অ্যাফিডেভিট করতে আদালতে তারা সময় প্রার্থনা করেন। পরে শুনানি মঙ্গলবার পর্যন্ত মুলতবির আদেশ দেন।

খালেদা জিয়া ফেনী-১, বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৭ আসনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। যাচাই-বাছাই শেষে তিনটি আসনের মনোনয়নপত্রই বাতিল করেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

৮ ডিসেম্বর নির্বাচন কমিশনে আপিলের শুনানির পর সংখ্যাগরিষ্ঠের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে খালেদা জিয়ার তিনটি আসনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদার নেতৃত্বে চার সদস্যের নির্বাচন কমিশন এ সিদ্ধান্ত দেন। শুনানিতে প্রার্থিতা বহালের পক্ষে মত দেন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।









Leave a reply